চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
ব্রাউজিং বিভাগ

লিস্ট

আলোকিত স্থাপনা: উমাইয়া মসজিদ, সিরিয়া

উমাইয়া মসজিদ, সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে অবস্থিত। মসজিদটির মূল নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয় ৭১৫ সালে। ১০৬৯ সাল থেকে ১৮৯৩ সালের মধ্যে মোট ছয় বার মসজিদে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছিল। এছাড়াও ১৭৫৯ সালের ভূমিকম্পে মসজিদের ব্যাপক ক্ষতি হয়। মসজিদটি প্রায়…

আলোকিত স্থাপনা: ইসলামিক সেন্টার অফ আমেরিকা

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যের ডিয়ারবর্ন শহরে অবস্থিত, ইসলামিক সেন্টার অভ আমেরিকা। মসজিদটি উদ্বোধন করা হয় ২০০৫ সালে। এর স্থপতি ডেভিড ডনেলন। মসজিদটিতে ৪টি গম্বুজ ও ২টি মিনার রয়েছে। নির্মাণ ব্যয় ১৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। একসঙ্গে…

আলোকিত স্থাপনা: কাইরুয়ান জামে মসজিদ

তিউনিসিয়ার কাইরুয়ান নগরের বেশ পুরনো ও ঐতিহ্যবাহী একটি মসজিদ। মসজিদটি প্রায় ৯,০০০ বর্গমিটার এলাকাজুড়ে অবস্থিত। উকবা বিন নাফি মসজিদটি নির্মাণ করেন। ৫টি গম্বুজ ও ৯টি প্রবেশ দ্বার রয়েছে । মসজিদের প্রাচীর নির্মাণ করা হয়েছে ইট ও পাথর দিয়ে।

আলোকিত স্থাপনা: ইস্তিষ্কাল মসজিদ, জাকার্তা

ইস্তিষ্কাল মসজিদ, ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় মসজিদ। মসজিদটি নির্মাণ হয় ১৯৭৮ সালে। মসজিদটিতে সাতটি প্রবেশপথ রয়েছে। একসঙ্গে ২ লক্ষ মানুষ নামায আদায় করতে পারে।

আলোকিত স্থাপনা: কুলশারিফ মসজিদ, রাশিয়া

কুলশারিফ মসজিদ রাশিয়ার কাজানে অবস্থিত। মসজিদটির নির্মাণ শেষ হয় ২০০৫ সালে। অভ্যন্তরের মেঝেতে মার্বেল পাথর ব্যবহার করা হয়েছে। মসজিদটিতে ১টি গম্বুজ ও ৪টি মিনার রয়েছে। একসঙ্গে ৬ হাজার মানুষ নামায আদায় করতে পারে।

আলোকিত স্থাপনা: ইবনে তুলুন মসজিদ, মিশর

ইবনে তুলুন মসজিদ,  মিশরের কায়রোতে অবস্থিত। কায়রোর প্রাচীন মসজিদগুলোর মধ্যে শুধু এটিই প্রাচীন রূপে টিকে রয়েছে। গভর্নর আহমেদ ইবনে তুলুন মসজিদটি নির্মাণ করেন। মসজিদটি নির্মাণ করা হয় ৮৭৯ খ্রিষ্টাব্দে। মসজিদটি জাবাল ইয়াশকুর নামক ছোট পাহাড়ের…

আলোকিত স্থাপনা: সুলায়মানি মসজিদ, তুরস্ক

সুলায়মানি মসজিদটি তুরস্কের ইস্তানবুল শহরের বৃহত্তম মসজিদ। এটি ১৫৫০ থেকে ১৫৫৭ সালের মধ্যবর্তী সময়ে নির্মিত করা হয়। মূল গম্বুজের কাছে অবস্থিত লম্বা মিনারগুলি ৭৬ মিটার উঁচু, আর ছোট মিনারগুলি ৫৬ মিটার উঁচু। মসজিদটির মেঝে শ্বেত মর্মর পাথরে…

আলোকিত স্থাপনা: জাতীয় মসজিদ, মালয়েশিয়া

জাতীয় মসজিদ, মালয়েশিয়া রাজধানী কুয়ালালামপুরে অবস্থিত। মসজিদটিতে একসঙ্গে প্রায় ১৫,০০০ মানুষ নামায আদায় করতে পারে। মসজিদটির মূল কাঠামোটি স্থপতি হাওয়ার্ড অ্যাশলি, হিশাম আলবকরি ও বাহারুদ্দিন কাসিম। মসজিদটির নির্মাণ কাজ শেষ হয় ১৯৬৫ সালে।

আলোকিত স্থাপনা: আল সালেহ মসজিদ

ইয়েমেনের বৃহত্তম এবং সবচেয়ে আধুনিক মসজিদ। সানাতে অবস্থিত ‘আল সালেহ মসজিদ’। এর আয়তন ২৭,৩০০ বর্গ মিটার। ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আলী আব্দুল্লাহ সালেহ ২০০৮ সালে এটি উদ্বোধন করেন। মসজিদটিতে ৫টি গম্বুজ ও ৬টি মিনার রয়েছে। মসজিদির অভ্যন্তরে কালো…

আলোকিত স্থাপনা: ফয়সাল মসজিদ

ফয়সাল মসজিদ পাকিস্তানের বৃহত্তম মসজিদ, যা রাজধানী ইসলামাবাদে অবস্থিত। মসজিদটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮৬ সালে। তুর্কি স্থপতি ভেদাত ডালোকে এর ডিজাইন করেন। সৌদি বাদশাহ ফয়সাল বিন আব্দুল আজিজ এই মসজিদ নির্মাণে সমর্থন এবং অর্থ সাহায্য প্রদান করেন। …