চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হামলাকারীদের একজন অস্ট্রেলিয়া ও লন্ডনে পড়াশোনা করেছে

শ্রীলঙ্কায় স্মরণকালের ভয়াবহ হামলার ঘটনায় জড়িতদের সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা বিভাগ। হামলাকারীদের মধ্যে একজন লন্ডনে এবং অস্ট্রেলিয়াতে পড়াশোনা করেছে বলে জানিয়েছেন উপ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী।

বিজ্ঞাপন

বিবিসি জানায়, ইস্টার সানডের অনুষ্ঠানে ও হোটেলে ভয়াবহ সিরিজ হামলায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৫৯জনে আর আহত হয়েছেন পাঁচ শতাধিক মানুষ।

এই হামলার পেছনে জড়িত ৯ জনের মধ্যে ৮ জনের পরিচয় সনাক্তের দাবি করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে একজন নারীও ছিল। এরা সবাই শ্রীলঙ্কার নাগরিক।

উপ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রুয়ান জয়বর্ধনে বলেন, আমরা জানতে পেরেছি একজন আত্মঘাতি হামলাকারী অস্ট্রেলিয়ায় পোস্ট গ্রাজুয়েশন করেছে। তার আগে সে লন্ডনে পড়াশোনা করেছে। এরপর সে শ্রীলঙ্কায় স্থায়ী হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রুয়ান বলেন, হামলাকারীদের বেশিরভাগ উচ্চ শিক্ষিত এবং মধ্যবিত্ত ও উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবারের সদস্য। তারা আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী এবং তাদের পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থাও ভালো।

পুলিশের একটি সূত্র এএফপিকে জানায়, বোমা হামলাকারীদের মধ্যে এক ধনাঢ্য মসলা ব্যবসায়ীর দুই ছেলে রয়েছে। তারা শাংরি-লা এবং চিন্নামন গ্র্যান্ড হোটেলে বিস্ফোরণ ঘটায়।

এদিকে শ্রীলঙ্কার সরকার এই হামলার পেছনে স্থানীয় ইসলামি উগ্রপন্থী গোষ্ঠী ন্যাশনাল তাওহীদ জামাতকে(এনটিজে) অভিযুক্ত করছে। তবে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে বলেছেন, ‘‘শুধুমাত্র স্থানীয়ভাবে এই হামলা চালানো সম্ভব না”। জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস হামলায় সম্পৃক্ত থাকতে পারে।

আইএসও এই হামলার দায় স্বীকার করেছে। হামলায় নিজেদের সম্পৃক্ততা প্রমানে ভিডিও প্রকাশ করেছে তারা। ভিডিওতে দেখা যায়, আইএস নেতা আবু বকর আল বাগদাদির কাছে আনুগত্যের শপথ নিচ্ছে হামলাকারী পরিচয় দেয়া ব্যক্তিরা।

তবে হামলায় সরাসরি জড়িত থাকার কোন প্রমান দিতে পারেনি আইএস।