চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কিশোরী ধর্ষণের পরে হত্যায় অভিযুক্তকে আটকের দাবিতে উত্তাল সামাজিক মাধ্যম

হবিগঞ্জে কিশোরী বিউটি আক্তার ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত বাবুলকে আটকের দাবিতে তার ছবি সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময়ে ঘটে যাওয়া ওই ঘটনা সম্প্রতি আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ব্রাহ্মণডোরা ইউনিয়নের ব্রাহ্মণডোরা গ্রামে বাবুল নামের ওই বখাটে কিশোরী বিউটিকে ধষর্ণের পর খুন করে লাশ ফেলে রেখে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ধর্ষকের মা ও এক সহযোগিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তবে মূল অভিযুক্ত আসামী বাবুল এখনো পলাতক রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি আনিসুর রহমান চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, গত ১৭ মার্চ রাতে পাশের থানায় নানার বাড়ি থেকে উধাও হয় বিউটি। পরদিন বেলা সাড়ে ১১টায় হাওরে তার লাশ পাওয়া যায়। তার শরীরে ৫টির মত আঘাতের চিহ্ন ছিল। ওইদিন বাড়িতে নিয়ে বিউটির লাশ দাফন করে পরিবারের লোকজন।

ওই কর্মকর্তা আরো জানান, বাবুল গত ২১ জানুয়ারি কিশোরী বিউটিকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়, ওই ঘটনার ১৫/১৬ দিন পরে বিউটি বাড়ি ফিরে আসলে বিউটির বাবা মেয়েকে বাড়ি থেকে তুলে নেয়া, ধর্ষণ ও ধর্ষণে সহায়তার অভিযোগ এনে বাবুল, তার মা ও আরো একজনকে আসামি করে ২ মার্চ কোর্টে মামলা করে। পরে কোর্টের আদেশে থানায় ৪ মার্চ মামলাটি লিপিবদ্ধ করে। এরপরেই এই পরিস্থিতি।

পুলিশ ১৯ মার্চ বাবুলের মা ও সন্দেহভাজন হিসেবে ইসমাইল নামে একজনকে গ্রেপ্তার করলেও বাবুল এখনও পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছে বলেও জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

বিজ্ঞাপন

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে ধর্ষণকারী বাবুলের ছবি দিয়ে তাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন অনেকে। বিউটির পড়ে থাকা নিথর লাশের ছবির সঙ্গে ভাইরাল হয়েছে ওই অভিযুক্ত বাবুলের ছবি।

বাবুলের ছবি শেয়ার দিয়ে প্রকাশক ও অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট রবিন আহসান ফেসবুকে লিখেছেন: লাল গোল বৃত্তে চিহ্নিত বাবুল নামের এই নরপশু জানোয়ারটি নৃশংসভাবে খুন হওয়া কিশোরী বিউটির হত্যাকারী। ইতোমধ্যেই পুলিশ খুনী বাবুলের মা (ইউপি সদস্য) এবং খুনের কাজে সহায়তাকারী কলমচান ও সন্দেহভাজন হিসেবে ঈসমাইল নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। ধর্ষক-খুনী বাবুল এখনো পলাতক। তার এই ছবিটি ছড়িয়ে দিন। পুলিশকে সহায়তা করুন। তাকে দেখা মাত্রই ধরে পুলিশকে জানান। কপি-পেস্ট বা শেয়ার করে ধর্ষক-খুনী বাবুলকে ধরতে সহায়তা করুন।

 

অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট কবির চৌধুরী তন্ময় একই দাবি জানিয়েছেন ফেসবুকে। তিনি বাবুলের ছবি ছড়িয়ে দিয়ে তাকে ধরতে পুলিশকে সহায়তা করতে বলেছেন তিনি।

বিনু মাহবুবা লিখেছেন: এই সেই ধর্ষক খুনী বাবুল যে বিউটিকে ধর্ষণ করেছে যে বিউটিকে হত্যা করেছে। পুলিশ এই শয়তানকে খুঁজে পাচ্ছে না। ছবিটি সবাই শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন। পুলিশকে সাহায্য করুন।

দুই বছর আগে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থী সোহাগী জাহান তনুকে ধর্ষণের পর হত্যা করে ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা, তারপরে সেই ঘটনার তদন্ত ও দোষীদের খুঁজে বের করার দাবি আলোড়ন তুলেছিল সামাজিক মাধ্যমে।