চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাকিব না থাকায় তাইজুল-মিরাজের ‘সেরা সুযোগ’

সিলেট থেকে: জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট খেললেই মুড়ি-মুড়কির মতো উইকেট তোলেন সাকিব আল হাসান। ২০১৪ সালে সবশেষ সিরিজে সফরকারী ব্যাটসম্যানদের হতাশায় ডোবানো এ বাঁহাতি স্পিনার। আঙুলের চোটে খেলছেন না এবারের সিরিজে। সাকিবের অনুপস্থিতি অন্যদের মেলে ধরার সুযোগ হিসেবে দেখছেন বাংলাদেশ দলের স্পিন কোচ সুনিল যোশি।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে তাইজুল-মিরাজ-অপুদের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কাজ করেছেন যোশি। অনুশীলন শেষে ড্রেসিংরুমে ফিরে কিছুক্ষণ অপেক্ষা, পরে নেমে এলেন সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হতে, ‘টেস্ট ম্যাচ ভিন্ন ঘরানার খেলা। এটা ধৈর্যের পরীক্ষা, চরিত্রের পরীক্ষা, স্কিলের পরীক্ষা। সাকিবকে আমরা সবাই মিস করব। বাংলাদেশের জন্য সে গ্রেট ক্রিকেটার ও দারুণ নেতা। তবে এটিই তাইজুল ও মিরাজের জন্য সেরা সুযোগ; নিজেদের আরও মেলে ধরার, দায়িত্ব নেয়ার ও দলের জন্য ভালো কিছু করার।’

তাইজুল-মিরাজ দুজনই টেস্টে পরীক্ষিত বোলার। ১৯ টেস্টে বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল নিয়েছেন ৬৯ উইকেট। ১৪ টেস্টে অফস্পিনার মিরাজের উইকেট সংখ্যা ৫৮টি। তিন ফরম্যাটেই দাপট দেখিয়ে যাচ্ছেন মিরাজ। সেখানে ওয়ানডে অভিষেকে হ্যাটট্রিক করলেও বাংলাদেশের হয়ে ৪ ম্যাচ থমকে আছে তাইজুলের রঙিন পোশাকে মাঠে নামা। নিপাট একজন টেস্ট স্পিনার হিসেবেই খেলে যাচ্ছেন দিনের পর দিন। এক ফরম্যাট খেলেও যেভাবে নিজের লাইন-লেন্থের ভারসাম্য বজায় রেখে চলেছেন তাইজুল, তাতে মুগ্ধ ভারতীয় সাবেক বাঁহাতি স্পিনার যোশি।

বিজ্ঞাপন

‘তাইজুল বেশ ধারাবাহিক। বছরখানেক ধরে ওকে দেখছি, খুবই সফল হয়েছে টেস্ট ক্রিকেটে। একটি সংস্করণ খেললেও ও বেশ ধারাবাহিক। টানা এক জায়গায় বল করে যেতে পারে। টেস্ট ক্রিকেটে যা দরকার, ধৈর্যের পরীক্ষা, চরিত্রের পরীক্ষা।’

সাকিব না থাকায় আরেক বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু প্রথমবারের মতো জায়গা পেয়েছেন টেস্ট স্কোয়াডে। টি-টুয়েন্টি ও ওয়ানডেতে ভালো বোলিংয়ের পুরস্কার পাওয়া এ স্পিনারকে নিয়েও আশাবাদী বাংলাদেশের স্পিন কোচ।

‘সাকিব নেই বলেই নির্বাচক ও টিম ম্যানেজমেন্ট নাজমুল ইসলাম অপুর কথা ভেবেছে। গত বছরখানেক ধরে সে টি-টুয়েন্টি ও ওয়ানডেতে ভালো করছে। তার পারফরম্যান্সের স্বীকৃতি এটা। টেস্ট দলে ওকে সুযোগ দেয়া হয়েছে। এখন আমাদের অপেক্ষায় থাকতে হবে টিম কম্বিনেশনে তার জায়গা কোথায় হয়।’

‘সুযোগ দেয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। সুযোগ না পেলে তো দেখা যাবে না সে কেমন করতে পারে। টি-টুয়েন্টি ও ওয়ানডে স্কিলের কারণেই নির্বাচক-ম্যানেজমেন্ট তাকে টেস্ট স্কোয়াডে রেখেছে। ও(অপু) সুযোগ পেলেই কেবল সেটা দেখতে পারব। তবে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টিতে তার বোলিং যা দেখেছি, সে জোর দাবিদার।’ যোগ করেন যোশি।