চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সরোদ-গান-কবিতায় শুরু বেঙ্গলের বর্ষবরণ এবং জলের গান

চৈত্র ফুরায়ে আসে। নতুন বছরের আবাহন। মনে-প্রকৃতিতে। প্রায় শেষ চৈতালী রাতে বৃহস্পতিবার বেঙ্গল বর্ষবরণ শুরু হয়েছে। সরোদে কবিতায়। শুরু হয়েছে উৎসব লালমাটির বেঙ্গল বই প্রাঙ্গণে।

পঞ্চকবির গানে, লোক-বাউল আর যন্ত্রসঙ্গীতে। পরাণ ভরে ওঠে। ‘পরাণ ভরি দাও’ এর সরোদ-গান-কবিতার অবগাহনে। এমন চলবে আরো তিন দিন। চৈত্রসংক্রান্তি-পহেলা বৈশাখ আর আর তার পরের দিন।

বিজ্ঞাপন

রাগ ভুপালীতে শুরুতে হয় বর্ষবরণ। বেঙ্গল পরম্পরা সঙ্গীতালয়ের শিক্ষার্থী শিল্পীদের অনবদ্য সরোদে শুরুতেই শ্রোতার অন্তরে ছড়ায় স্নিগ্ধতার আবেশ।

থামে সরোদের ধ্বনি। শুরু হয় গান কবিতার যুগলবন্দী। কখনো গানের ফাঁকে কবিতা আবার কবিতার মাঝে বেঁজে উঠেছে সুর। পঞ্চকবি বিমূর্ত হয়ে উঠেছে শারমীন সাথী ইসলামের কণ্ঠে। আহা কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম, দ্বিজেন্দ্রলাল রায়, অতুল প্রসাদ আর রজনীকান্ত সেন।

কখনও ‘কেউ ভোলে না কেউ ভোলে’, কখনও ‘তুমি যে প্রাণের বধু’ আবার কখনও ‘রসঘন শ্যাম’ এর রসাস্বাদন। তার মাঝে মাঝে কবিতার মেঘমন্দ্র বাচিক আয়োজন। আবৃত্তিজন হাসান আরিফের কণ্ঠে উচ্চারিত হয় রবীন্দ্র-নজরুলসহ সমকালীন কবিদের কবিতা।

শিমুল ইউসুফকে সম্মাননা জানাচ্ছে বেঙ্গল পরম্পরা সঙ্গীতালয়ের শিক্ষার্থীরা

অনুষ্ঠানের ওজন আরো বেড়ে যায় যখন মঞ্চকুসুমকে শিমূল ইউসুফকে সম্মান জানায় বেঙ্গল পরম্পরা সঙ্গীতালয়ের শিক্ষার্থীরা। পুরো অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক লুভা নাহিদ চৌধুরী।

উৎসবের দ্বিতীয় দিনে আজ সন্ধ্যায় মানবিক উজ্জীবনের প্রত্যাশায় সময় চেতনার গান করবে জলের গান। সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হবে জলের গান এর পরিবেশনা। পহেলা বৈশাখে দিনব্যাপী থাকবে পথিক বাউলের পরিবেশনা। আর ৎসবরে সমাপনী দনিরে সন্ধ্যায় লোকগান শোনাবনে হালিমা পারভীন ও ভজন বাউল।

FacebookTwitterInstagramPinterestLinkedInGoogle+YoutubeRedditDribbbleBehanceGithubCodePenEmail