চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সরাইল উপজেলা নির্বাচনে মনোনয়ন দৌড়ে যারা এগিয়ে

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চতুর্থ ধাপের তফসিল অনুযায়ী আগামী ৩১ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আসন্ন নির্বাচনে ইতোমধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে একাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

মনোনয়ন জমা দেওয়া প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শের আলম মিয়া; সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. রফিক উদ্দিন ঠাকুর; শফিকুর রহমান ও মোখলেছুর রহমান।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রার্থীদের মধ্যে বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শের আলম মিয়ার গ্রহণযোগ্যতাই বেশি।

কারণ হিসেবে স্থানীয় আওয়ামী লীগের কর্মী রফিক মিয়া জানান, রফিক উদ্দিন ঠাকুর হত্যা মামলার প্রধান আসামি এবং শফিকুর রহমান ও মোখলেছুর রহমান আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত নন।

বিজ্ঞাপন

রফিক মিয়া বলেন, ‘শের আলম ছাড়া অন্যদের মনোনয়ন দিলে সরাইল উপজেলার উন্নতি বাধাগ্রস্ত হবে। বর্তমানে সরাইল উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপির, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানও বিএনপির; সেখানে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শের আলমই আওয়ামী লীগের একমাত্র জনপ্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।’

মনোনয়নের বিষয়ে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আশরাফ উদ্দিন মন্তু বলেন, ‘একমাত্র শের আলমই দীর্ঘ পাঁচ বছর সরাইল উপজেলায় আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিত্ব করে আসছেন। তার মতো জনপ্রিয় লোকেরা মনোনয়ন না পেলে আওয়ামী লীগের প্রতি সাধারণ মানুষের আস্থা কমে যাবে।’

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী শের আলম বলেন, ‘আমি দলীয় মনোয়নপত্র জমা দিয়েছি। মাঠে জনপ্রিয়তার দিক থেকে আমি সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আমার অগাধ বিশ্বাস রয়েছে। আমি আশা করি, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার সততা ও জনপ্রিয়তা বিবেচনা করে আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনীত করবেন।’

গত ২০ ফেব্রুয়ারি ইসি সচিব আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চতুর্থ ধাপের তফসিল ঘোষণা করেন।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী চতুর্থ ধাপে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ৪ মার্চ, মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ৬ মার্চ, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৩ মার্চ এবং ভোট গ্রহণ হবে ৩১ মার্চ। এই ধাপে ১৬ জেলার ১২২টি উপজেলায় ভোট হবে।