চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সংগীত জীবনে সুবীর নন্দীর অনুসারী এসডি রুবেল

বর্তমানে যারা সংগীত জগতে বিরাজ করছেন, তারা যদি প্রকৃত শিল্পী হিসেবে ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাতে চান তাহলে সুবীর নন্দীর পথে হাঁটার বা তাকে অনুসরণ করার কোনো বিকল্প নেই বলে মনে করেন এক সময়ের তুমুল জনপ্রিয় শিল্পী এসডি রুবেল।

বিজ্ঞাপন

সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে বুধবার সকাল ১১টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয় সুবীর নন্দীর মরদেহ। শেষবারের মতো তাঁকে দেখতে এসে এমন মন্তব্য করেন সংগীতশিল্পী এসডি রুবেল।

সংগীত জীবনে সুবীর নন্দীকে অনুসরণ করেন জানিয়ে চ্যানেল আই অনলাইনকে এই শিল্পী বলেন,আমরা যারা নতুন প্রজন্ম, তারা সুবীর নন্দীকে ফলো করি। সুবীর নন্দীর পথ ধরে, সাধনার মধ্য দিয়েই আমাদের শিল্পী হতে হবে। ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাতে হলে সুবীর নন্দীকে ফলো করার কোনো বিকল্প নেই।

সম্মলিত সাংস্কৃতিক জোটের সহযোগিতায় শহীদ মিনারে সুবীর নন্দীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত সাধারণ মানুষের পাশাপাশি এসময় দেখা গেছে নাট্য ব্যক্তিত্ব রামেন্দ্র মজুমদার, গণপূর্ত মন্ত্রী রেজাউল করিম, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ-এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দিন ইউসুফ, খুরশিদ আলম, রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, সংগীতশিল্পী রফিকুল আলম, গীতিকবি মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান, গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীর, গীতিকবি শহীদুল্লা ফরায়েজী, ফুয়াদ নাছের বাবু, নকীব খান, শুভ্রদেব, চিত্রনায়িকা নূতন, চিত্রনায়ক উজ্জ্বলসহ বহু সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনগুলোকে।

সিঙ্গাপুর থেকে বুধবার সকাল পৌনে সাতটার দিকে ঢাকায় পৌঁছে সুবীর নন্দীকে বহনকারী উড়োজাহাজটি! এরপর বিমান বন্দর থেকে সোজা তাকে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁর গ্রীন রোডের বাসায়।

সেখান থেকে বেলা ৯টার দিকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকেশ্বরী মন্দিরে। সেখানে ফুলে ফুলে ঢেকে দেয়া হয় সুবীর নন্দীকে। সেখানে আনুষ্ঠানিকতা শেষে এরপর তাকে নিয়ে আসা হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। এরপর তাকে নিয়ে যাওয়া হয় এফডিসিতে। সেখান থেকে নেয়া হবে তেজগাঁওয়ে অবস্থিত চ্যানেল আইয়ের প্রধান কার্যালয়ে।

গেল ১৪ এপ্রিল ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সংকটাপন্ন অবস্থায় সিএমএইচে চিকিৎসাধীন ছিলেন সুবীর নন্দী। উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তত্ত্বাবধানে সুবীর নন্দীর চিকিৎসার জন্য ৩০ এপ্রিল সকালে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে সিঙ্গাপুর নেয়া হয়।