চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শ্রমিকদের মজুরি বাড়াতে ক্রেতাদের দোহাই!

ভবিষ্যতে শ্রমিকদের মজুরি বাড়াতে ক্রেতাদের দোহাই দিয়ে শ্রম ও প্রতিমন্ত্রী মজিবুল হক চুন্নু বলেছেন, বিদেশি ক্রেতারা বাংলাদেশি তৈরি পোশাকের দাম বাড়ালে ভবিষ্যতে শ্রমিকদের মজুরি আরও বাড়ানো হবে

বিজ্ঞাপন

বুধবার রাজধানীর বিজিএমইএ ভবনে তৈরি পোশাক শিল্প খাতে কর্মরত অসুস্থ শ্রমিকদের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা ও শ্রমিকদের মেধাবী সন্তানদের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় ৫৭ অসুস্থ শ্রমিক ও ৭৭ জন শিক্ষার্থীসহ মোট ১৩৪ জনকে অর্থ সাহায্যের চেক তুলে দেওয়া হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, পোশাক শিল্পের ব্যবসা ভালো হলে, এবং বিদেশি ক্রেতারা পোশাকের দাম বাড়ালে ভবিষ্যতে শ্রমিকদের বেতন আরও বাড়ানো হবে। কিন্তু বায়াররা পণ্যের দাম বাড়াচ্ছে না। বরং গত কয়েক বছরে ২ থেকে ৩ শতাংশ কমিয়েছে। ফলে দুই পক্ষকেই আমাদের বাঁচিয়ে রাখতে হবে। পোশাক খাতকে টিকিয়ে রাখতে হবে।

বিজ্ঞাপন

শ্রমিকদের বিষয়ে মজিবুল হক চুন্নু বলেন, মজুরি নিয়ে কোনো শ্রমিক যেন কারো উসকানির ফাঁদে পা না দেয় সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি বলেন, পোশাক শিল্প থেকে রপ্তানি আয়ের দশমিক শূন্য তিন (.০৩) শতাংশ শ্রমিক কল্যাণ তহবিলে যোগ হচ্ছে। বর্তমানে ওই ফান্ডে ১২৩ কোটি টাকা আছে। এর মধ্যে শ্রমিকদের জন্য থাকা ৬১ কোটি টাকা ব্যাংকে এফডিআর করে রাখা হয়েছে। এফডিআর থেকে যে মুনাফা আসছে তা থেকেই আজ অসুস্থ শ্রমিক ও শ্রমিক পরিবারের মেধাবী শিক্ষার্থীদের অর্থ সাহায্য করা হয়েছে।

শ্রমিক কল্যাণ তহবিল গঠনের বিষয়ে চুন্নু বলেন, আমার জীবনে যত ভালো কাজ করেছি এর মধ্যে এটি (ফান্ড গঠন) সবচেয়ে ভালো কাজ। প্রধানমন্ত্রীর উৎসাহে এ ফান্ড গঠন করা হয়েছে। আমরা যে কাজ করেছি আগামী ডিসেম্বরের নির্বাচনে তার ফলাফল পাবো বলে বিশ্বাস করি।

সভাপতির বক্তব্যে বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আগামী জানুয়ারিতে আমরা নতুন বেতন কার্যকর করবো। এক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। আমাদের সক্ষমতা না থাকার পরও আমরা ৮ হাজার টাকা বেতন দিতে রাজি হয়েছি। অথচ মালিকরা সর্বোচ্চ ৭ হাজার টাকা বেতন দিতে সক্ষম। আমরা আপনাদের শ্রমিক মনে করি না, আপনারা আমাদের অংশীজন।

শ্রমিকদের বেতন বাড়ানোর কারণে যেন বাসা ভাড়া না বাড়ে সে ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হবে জানিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, শ্রমিকদের কল্যাণে আমরা কাজ করছি এবং করে যাবো।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিকেএমইএর সভাপতি এ কে এম সেলিম ওসমান, শ্রম ও কর্মসংস্থান সচিব আফরোজা খান ও আনিসুল আউয়াল প্রমুখ।