চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শুক্রবার দেশীয় প্রেক্ষাগৃহে আসছে কলকাতার ‘গার্লফ্রেন্ড’

গেল সপ্তাহে ‘ভিলেন’-এর পর আবারও দেশের প্রেক্ষাগৃহে আমদানিকৃত ছবি ‘গার্লফ্রেন্ড’

হিড়িক পড়েছে বাংলাদেশের সিনেমা হলে আমদানি করে পশ্চিমবঙ্গ থেকে ছবি মুক্তি দেওয়ার। গেল শুক্রবার (৩০ নভেম্বর) এন ইউ আহমেদ ট্রেডার্সের ব্যানারে কলকাতার ‘ভিলেন’ মুক্তির পর এবার আসছে শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে কলকাতার আরেক ছবি ‘গার্লফ্রেন্ড’।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদশের ‘গার্লফ্রেন্ড’ আমদানি করছেন তিতাস কথাচিত্র। ইতোমধ্যে ঢাকার একাধিক সিনেমা হলের সামনে ঝুলছে ‘গার্লফ্রেন্ড’-এর পোস্টার। মঙ্গলবার এশিয়া, সনি সিনেমা হলের নোটিশ বোর্ডে দেখা গেল শুক্রবার ‘গার্লফ্রেন্ড’ ছবিটি পরবর্তী আকর্ষণ হিসেবে প্রচার করা হচ্ছে।

২৬ নভেম্বর সেন্সর বোর্ড থেকে ‘গার্লফ্রেন্ড’ ছাড়পত্র পায়। সুতরাং মুক্তিতে আর কোনো বাঁধা নেই। আগামী শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশে ছবিটি মুক্তি দেওয়া হবে। চ্যানেল আই অনলাইনকে কথাগুলো বলছিলেন তিতাস কথাচিত্রের কর্ণধার আবুল কালাম আজাদ।

পশ্চিমবঙ্গ থেকে আমদানিকৃত দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক মুক্তবাণিজ্য চুক্তির (সাফটা) মাধ্যমে বাংলাদেশে ‘গার্লফ্রেন্ড’ মুক্তি দিচ্ছেন। এর আগে এই প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে বাংলাদেশে মুক্তি পেয়েছিল তোমাকে চাই, চ্যাম্প, বলো দুগ্গা মাইকি ছবিগুলো।

তিতাস কথাচিত্রের কর্ণধার জানান, ‘গার্লফ্রেন্ড’ ছবির বিনিময়ে পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশের ছবি ‘বিজলী’। সেখানকার সেন্সর বোর্ডে ছবিটি জমা দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

দেশের ছবি রেখে কেন কলকাতার ছবি প্রদর্শন করা হচ্ছে জানতে চাইলে এশিয়া ও সনি এই দুই সিনেমা হলের কর্মকর্তারা বলেন, সিনেমা হল টিকিয়ে রাখতে যতগুলো মানসম্মত ছবি দরকার, ততগুলো ছবি আসছে না। দু-একটি বাদে বাংলাদেশের বেশিরভাগ ছবি দর্শক গ্রহণ করছে না। তাই হল টিকিয়ে রাখতে বাধ্য হয়েই কলকাতার ছবি চালাতে হচ্ছে। চাহিদা মতো ছবির যোগান না দিতে পারলে এভাবেই আমদানি করে চালাতে হবে।

‘গার্লফ্রেন্ড’ প্রযোজনা করেছেন কলকাতার সুরিন্দর ফিল্মস, পরিচালনা করেছেন রাজা চন্দ। প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন বনি সেনগুপ্ত ও কৌশানি। অন্যদিকে, বাংলাদেশের ছবি ‘বিজলী’ প্রযোজনা করেছেন চিত্রনায়িকা ববির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ববস্টার। ছবির পরিচালক ইফতেখার চৌধুরী। মুক্তি পেয়েছিল গত ১৩ এপ্রিল।