চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

শপথ নেওয়ার বিষয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত হতে পারে: ড. কামাল

একাশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গণফোরামের দুই প্রার্থী নির্বাচিত হওয়াকে বড় রকমের অর্জন মন্তব্য করে ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন: শপথ নেওয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

শনিবার বিকেলে রাজধানীর বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির বর্ধিত সভা শেষে সংবাদ সম্মেলন তিনি এসব কথা বলেন।

ড. কামাল বলেন: বিরোধী দল থেকে তারা নির্বাচিত হয়েছেন। এটা তাদের অর্জন। তাদের অভিনন্দন জানাই। তারা এই অর্জন ধরে রেখে ইতিবাচক ভূমিকা রাখার চেষ্টা করবে।

বিজ্ঞাপন

শপথ নেওয়ার ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন: আমরা ইতিবাচকভাবে নিচ্ছি। ইতিবাচক সিদ্ধান্ত হবে।

২০ দল বলেছে, তারা শপথে নেবে না, আর গণফোরাম যদি ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেয় তবে ঐক্যের সমস্যা হবে কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে কামাল হোসেন বলেন: আমার মনে হয় না কোনো সমস্যা হবে। কোনো দ্বন্দ্ব তৈরি হবে না। ঐক্যফ্রন্ট আমরা রাখার জন্যই করেছি। আমরা ঐক্যের মধ্যদিয়ে যেতে চাই৷ ঐক্য থাকবে৷ নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে আন্দোলন হবে।

এসময় তিনি আরো বলেন: সরকার একের পর এক সংবিধান ভঙ্গ করছে। এই সংবিধান ভঙ্গের কারণে গুরুতর সাংবিধানিক সংকট সৃষ্টি করছে৷ এতে সবাই উদ্বিগ্ন। দুঃখ লাগে যে বছরের শুরুতে এমন একটি নির্বাচন হয়েছে, যা অবাধ ও সুষ্ঠু হওয়ার কথা, যেখানে জনগণের মালিকানার কথা থাকার কথা। কিন্তু খুবই দুঃখজনক! তা হয়নি।

তিনি বলেন: অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন না হলে প্রতিনিধিত্বশীল নির্বাচন হয় না। এটা যে সংবিধানের উপর কতোটা আঘাত তা স্পষ্ট। এতে করে সাংবিধানিক সংকট সৃষ্টি করছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টু৷ এসময় গণফোরাম থেকে নির্বাচিত দুই সংসদ সদস্যসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।