চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

লিচু পাড়া নিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে রাবি ছাত্রলীগের সংঘর্ষে আটক ১

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে লিচু পাড়াকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ওপর স্থানীয়দের হামলার ঘটনায় হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

নগরীর মতিহার থানায় মামলায় পাঁচ জনের নাম উল্লেখসহ ১১ জনকে আসামি করা হয়েছে। মারধরের দিন (মঙ্গলবার) রাতে রাবি ছাত্রলীগের আইন অনুষদের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন মামলাটি করেন। এদের মধ্যে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মামলার আসামিদের মধ্যে তিন জনের নাম প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। তারা হলেন- আশীষ, সানা ও সাদ্দাম। তারা নগরীর কাজলা ও ভদ্রা এলাকার বাসিন্দা।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে মামলার অন্যতম আসামি আশীষকে (২৪) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযানে নেমেছে পুলিশ।

মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন বলেন, মঙ্গলবার রাতে ছাত্রলীগ নেতা ইমরান হোসেন বাদী হয়ে ১১ জনকে আসামি করে হত্যাচেষ্টা মামলা করেন। তাদের মধ্যে একজনকে পুলিশ আটক করেছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘লিচু পাড়াকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীদের মারধর করার ঘটনা ঘটেছে। এটা খুবই দুঃখজনক। তবে যারা হামলা করেছে তাদের একজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। অন্যদের গ্রেপ্তার করার জন্য কাল রাত থেকেই অভিযানে আছে মতিহার থানা পুলিশ। আর হামলায় যে শিক্ষার্থীরা আহত হয়েছে তাদের প্রতিনিয়তই খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে।’

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কানন ও উপ-আন্তর্জাতিক সম্পাদক মেহেদি হাসানসহ ছাত্রলীগের আটজন নেতাকর্মী গোদাগাড়ী বাগানে লিচু পাড়তে যায়। বাগানটি পাহাড়ার দায়িত্বে থাকা বেশ কয়েকজন স্থানীয় তাদেরকে বাধা দেয়। একপর্যায়ে তাদের সাথে স্থানীয়দের সাথে বাকবিতণ্ডা হলে স্থানীয়রা তাদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠি-বাঁশ দিয়ে সবাইকে এলোপাথাড়ি মারধর করে। এতে কাননের দুই হাত ভেঙে যায় এবং মেহেদীর এক পায়ে গুরুতর জখম হয়।