চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রানে সবার শীর্ষে সাকিব

বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরে প্রতিটি ম্যাচেই যেন নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার মিশন নিয়ে মাঠে নামছেন সাকিব আল হাসান। চার ইনিংস ব্যাটিং করে দুটিতে সেঞ্চুরি, বাকি দুটিতে হাফসেঞ্চুরি করেছেন তিনি। ধারাবাহিক পারফরম্যান্স উপহার দিয়ে এবারের আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীর আসনে ফিরেছেন টাইগার অলরাউন্ডার।

আগের ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করেছিলেন সেঞ্চুরি। সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেও তুলে নিলেন শতক। সাকিবের ব্যাক-টু-ব্যাক সেঞ্চুরির সুবাদে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে ক্যারিবিয়ানদের হারিয়ে সেমিফাইনালের স্বপ্ন টিকিয়ে রেখেছে বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

টন্টনে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩২১ রানের পাহাড় গড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে সাকিবের অনবদ্য সেঞ্চুরি এবং লিটন দাসের হার না মানা ৯৪ রানের ইনিংসে ৪১.৩ ওভারে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে হেসেখেলেই জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

চতুর্থ উইকেটে ১৩৫ বলে লিটনকে নিয়ে ১৮৯ রানের অনবদ্য অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন সাকিব। ৯৯ বলে ১৬ চারে ১২৪ রানের হার না মানা ইনিংস বাঁহাতি তারকার। এর আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১২১ রানের ইনিংস খেলেছিলেন।

তৃতীয় ম্যাচ শেষে শীর্ষ রান সংগ্রহকারীর আসন দখল করেছিলেন সাকিব। অ্যারন ফিঞ্চ ও রোহিত শর্মা নিজ নিজ ম্যাচে সেঞ্চুরি করে পরে সাকিবকে ছাড়িয়ে যান। সোমবার ফিঞ্চকে টপকে এগিয়ে শীর্ষস্থান পুনর্দখল করলেন বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

চলতি বিশ্বকাপে চার ম্যাচে চার ইনিংস ব্যাটিং করে এখন পর্যন্ত ৩৮৪ রান করেছেন সাকিব। গড়টা ব্র্যাডম্যানীয় গড়কেও ছাপিয়ে গেছে (১২৮.০০)। সাউথ আফ্রিকা ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হাফসেঞ্চুরি করার পর টানা দুটি সেঞ্চুরি করে সবার উপরে তিনি।

দুই নম্বরে থাকা ফিঞ্চ ৬৮.৬০ গড়ে করেছেন ৩৪৩ রান। ১৫৯.৫০ গড়ে ৩১৯ রান করে রোহিতের অবস্থান তিন নম্বরে। ওয়ার্নার ২৮১ এবং জো রুট ২৭৮ রান নিয়ে শীর্ষ পাঁচে রয়েছেন।