চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ম্যানইউকে অপেক্ষায় রাখলেন জিদান

মরিনহোকে বরখাস্ত করে জিনেদিন জিদানকে আনছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড- এমন জল্পনায় নতুন মাত্রা পায় মরিনহোকে জিদান ফোন করায়। পরে রেড ডেভিল কর্মকর্তারাও বলেছেন, কোচ সরানোর কোনো ইচ্ছে তাদের নেই।

বিজ্ঞাপন

তাতে জল্পনা থামছে? ইউনাইটেডের কোচ হিসেবে জিদানের নাম ওঠার পর ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ী কিংবদন্তি ফোন করেন মরিনহোকে। ‘স্পেশাল ওয়ান’কে জানিয়ে দেন, আদৌ তিনি ম্যানইউর কোচ হওয়ার দৌড়ে নেই। মরিনহো নিশ্চিতই থাকতে পারেন।

মরিনহো তাতেও নিশ্চিত থাকতে পারছেন কোথায়! ব্রিটিশ দৈনিক দ্য ডেইলি মিরর জানাচ্ছে, মরিনহোকে ফোন করলেও ওল্ড ট্রাফোর্ডে যাওয়ার ব্যাপারে ম্যানইউকে অপেক্ষায় রেখেছেন জিদান। ভেবে-চিন্তেই নাকি সিদ্ধান্ত নিতে চান রিয়ালের সাবেক কোচ। এই মিররই কয়েকদিন আগে খবর দিয়েছিল, ইংরেজির তালিম নিচ্ছেন জিদান।

বিজ্ঞাপন

চলতি মৌসুমে খুবই বাজে শুরু করেছে ম্যানইউ। শনিবার রাতে নিউক্যাসলের বিপক্ষে জিততে ঘাম ঝরেছে তাদের। ম্যাচে শুরুতে দুই গোলে পিছিয়ে পড়েছিল মরিনহোর শিষ্যরা।

মিরর বলছে, দল খারাপ করলেও মরিনহোকে তাড়াহুড়া করে চাকরিচ্যুত করবে না ম্যানইউ। এক্ষেত্রে তারা ফন গালের পথে হাঁটতে চায়। ডাচ কোচকে সরিয়ে মরিনহোকে চেয়ারে বসানোর সময়ও আস্তে-ধীরে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ক্লাব কর্মকর্তারা।

স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন অবসরে যাওয়ার পর আর কোনো কোচই ম্যানইউতে সফল হতে পারেননি এবং সবাইকেই বরখাস্ত হতে হয়েছে।

ব্রিটিশ মিডিয়ার চোখে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে মরিনহোর তপ্ত চেয়ারে বসার একাধিক বিকল্প থাকলেও সবার উপরে আছেন রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক কোচ জিদান। ম্যানইউর সিনিয়র কর্মকর্তাদের বিশ্বাস, জিদান খুব দ্রুতই বিষণ্ণ ড্রেসিংরুমের পরিবেশ পাল্টে ফেলতে পারবেন।