চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মেয়ের সংসার বাঁচাতে গিয়ে মায়ের মৃত্যু

মেয়ের সংসার বাঁচাতে গিয়ে শেষ পর্যন্ত মায়ের মৃত্যু হলো। যৌতুকের দাবি মেটাতে না পারায় বিয়ের মাত্র ৮ মাসের মরিয়মকে যখন বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয় মা জহুরা বেগম মেয়েকে শ্বশুড়বাড়ি দিতে গিয়েই তার মৃত্যু হয়।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বাসাইল উপজেলার বাংড়া জোরবাড়ি গ্রামের মেহের আলীর মেয়ে মরিয়ম আক্তারের বিয়ে হয় সখীপুর উপজেলার নলুয়া দক্ষিণ পাড়া গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে হাসান সজীব রাজিবের সঙ্গে। মেয়ের আত্মীয় স্বজনরা জানায়, মেয়ের বাড়ি থেকে  বিয়েতে তিন ভরি স্বর্ণ দেয়ার কথা থাকলেও দুই ভরি স্বর্ণ দেয়। এরপর এক ভরি স্বর্ণ নেয়ার আগে সিএনজি চালিত অটো রিকশা ও বিদেশে যাওয়ার জন্য কয়েক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। সেই যৌতুক পূরণ করতে না পারায় বিয়ের পরই মরিয়মকে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেয়।

গত মঙ্গলবার বিকেলে বাবা মেহের আলী ও মা জহুরা মরিয়মকে নিয়ে সজীবের বাড়িতে গেলে যৌতুকের জন্য তাদের ওপর চড়াও হয়। একপর্যায়ে মরিয়মের মা জহুরা বেগমকে গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

যৌতুক দাবি ও জহুরা বেগমের হত্যার ঘটনা সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী।