চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মামুলি টার্গেটে নড়বড়ে ভারত

ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সামনে টি-টুয়েন্টি ম্যাচে টার্গেট ১০৯ রান। তাও আবার ঘরের মাঠে। কিন্তু এই মামুলি টার্গেটেই নড়বড়ে ভারতীয় ব্যাটিং লাইনআপ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শেষ পর্যন্ত ম্যাচ জিতলেও বেশ ঝাঁকি খেতে হয়েছে রোহিত শর্মার দলকে। ১৩ বলে হাতে রেখে স্বাগতিকরা ম্যাচ জিতেছে ৫ উইকেটে।

বিজ্ঞাপন

ভারতীয়দের ভাগ্য ভালো যে কম রানের লক্ষ্য দিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই লক্ষ্যে পৌঁছাতেই রীতিমতো চাপে পড়ে তারা। ১১০ রানে লক্ষ্যে নেমে ৮৩ রানেই সাজঘরে ফেরে ভারতের প্রথমসারির পাঁচ ব্যাটসম্যান। দীনেশ কার্তিক নেমে হাল না ধরলে জয় ফলাফল অন্যরকমই হতে পারত। তিনি আর কুণাল পাণ্ডেই দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন। ১৭.৫ ওভারে ১১০ রান তুলে জয় তুলে নেয় তারা।

বাজে ওয়ানডে সিরিজের পর টি-টুয়েন্টির শুরুটাও খুব ভালো করতে পারল না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। নির্ধারিত ওভারে মাত্র ১০৯ রান করেই শেষ হয় ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং। আর এই ১০৯ রান করতেই খোয়াতে হয় আট উইকেট।

বিজ্ঞাপন

এই ম্যাচেই ভারতের হয়ে টি-টুয়েন্টিতে অভিষেক হয় ক্রণাল পাণ্ডে ও খলিল আহমেদের। দুই নবাগতই বল হাতে একটি করে উইকেট নেন। তবে দিনের শেষে বাজিমাত করে সেই কুলদীপ যাদব। তিন উইকেট নেন তিনি।

ইডেনে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ছন্দপতন ঘটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের। দুই ওপেনার শাই হোপ ১৪ ও রামদিন ২ রান করে ফিরে যান প্যাভেলিয়নে। কেউই তেমনভাবে দলের ব্যাটিংয়ের হাল ধরতে পারেননি। এরপর হেটমেয়ার ১০, পোলার্ড ১৪, ব্রাভো ৫, পাওয়েল ৪, ব্র্যাথওয়েট ৪, অ্যালেন ২৭ রান করে আউট হন। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান অ্যালেনের ২৭। ১৫ রান করে পল ও ৯ রান করে পিয়ের অপরাজিত থাকেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথমেই ফিরে যান ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। তার ব্যাট থেকে আসে মাত্র ৬ রান। থমাসের বলে রামদিনকে ক্যাচ দিয়ে প্যাভেলিয়নে ফেরেন তিনি। সেই থমাসের বলেই বোল্ড হয়ে ৩ রান করে প্যাভেলিয়নের পথ ধরেন শিখর ধাওয়ান। শুধু তিনি নন, তার পথ ধরেন লোকেশ রাহুল, ঋষভ পান্ট, মণীশ পান্ডেরা। কেউ ভরসা দিতে পারেননি ভারতের ব্যাটিংকে। লোকেশ করেন ১৬ রান, পান্ট ১, মণীশের রান ১৯।

তবে অভিষেকেই মান রাখেন পাণ্ডে ভাইদের বড় ভাই কুনাল পাণ্ডে। ৯ বলে করেন অপরাজিত ২১ রান। সেখানে ধরে খেলে দলকে ভরসা দেয়া দীনেশ কার্তিক ৩৪ বলে ৩১ রানে অপরাজিত থাকেন। যার ফলে ৫ উইকেটেই ম্যাচ জিতে নেয় ভারত।

এই জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০তে এগিয়ে গেল ভারত। দু’দলের পরের ম্যাচ হবে ৬ নভেম্বর।