চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মাদক ব্যবসায়ীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন: মাদক ব্যবসার সঙ্গে যারা জড়িয়ে গেছে তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে আত্মসমর্পণ সাপেক্ষে নতুন কিছু (ব্যবসা) করতে আর্থিক সহায়তা দেবে সরকার।

বিজ্ঞাপন

বুধবার এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে জাতীয় সংসদকে এই তথ্য জানান প্রধানমন্ত্রী।

এসময় তিনি বলেন: তারা যেন কিছু করতে পারে, এজন্য আমরা আর্থিক সহায়তা দেবো। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে এক সম্পূরক প্রশ্নে চট্টগ্রাম-৩ সংসদীয় আসন থেকে নির্বাচিত সাংসদ মাহফুজুর রহমান সংসদ নেতার কাছে প্রশ্ন রাখেন: যে সকল মাদক ব্যবসায়ী আত্মসমর্পণ করেছেন তাদেরকে তাদের সংশোধনের জন্য কোনো নীতিমালা বা পদক্ষেপ সরকারের পক্ষ থেকে গ্রহণ করা হবে কিনা?

বিজ্ঞাপন

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন: মাদকের বিরুদ্ধে জনসচেতনতামূলক পদক্ষেপ এবং প্রচারণা চালানোর ফলে একটা ফল সকলেই বুঝতে পেরেছে। মাদক গ্রহণ এবং পরিবহন করা যে একটা অপরাধ সে সম্পর্কে জনগণ এখন যথেষ্ট সচেতন। মাদক ব্যবসার সঙ্গে যারা জড়িত ছিল তারা সচেতন হয়ে আত্মসমর্পণ করছে। যারা আত্মসমর্পণ করেছে তাদের মধ্যে যারা মাদকাসক্ত তাদের আমরা চিকিৎসা-কাউন্সেলিংয়ের ব্যবস্থা করছি।

এছাড়াও মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িতদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে প্রণোদনার ব্যবস্থাও থাকছে বলে সংসদকে জানান সংসদ নেতা।

তিনি বলেন: তাদের (আত্মসমর্পণকারী মাদক ব্যবসায়ী) পরিবারকে সহায়তা দেয়া হচ্ছে। পাশাপাশি তারা যেন এ ব্যবসা ছেড়ে দিয়ে নতুন কিছু করতে পারে তার জন্য আমরা আর্থিক সহায়তা দেবো। ইতোমধ্যে আমরা সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিয়েছি। মাদক ব্যবসা ছেড়ে তারা যেন অন্য যেকোনো ব্যবসা করে জীবিকা নির্বাহ করতে পারে সেই ব্যবস্থা আমরা করে দেওয়ার চেষ্টা করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন: সমাজের সকলকে মাদকের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। বাবা-মা থেকে শুরু করে অভিভাবক-গুরুজনসহ মসজিদের ইমাম সকলকে মাদকের কুফল সকলের সামনে তুলে ধরতে হবে। পরিবারের সন্তান কোথায় যায়, কার সাথে মিশে, সেই বিষয়ে বাবা-মাকে সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি বলেন: এ বিষয়ে আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থা সকলেই যথেষ্ট সচেতন। আমরা প্রত্যাশা করি সরকার, প্রশাসন এবং সমাজের সকলে মিলে মাদক দূর করতে পারবো।