চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মমতা দিদি ভালো নেই: বাবুল সুপ্রিয়

বিজেপি সমর্থকদের ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগানের বিরোধিতা করায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে কটাক্ষ করেছেন রাজ্যের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। বলেছেন: ‘দিদি ভালো নেই’।

বিজ্ঞাপন

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের ঘাঁটিতে প্রথম বিপুল সমর্থন পাওয়া বিজেপির কর্মী-সমর্থকদের ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দেয়ার প্রতিবাদ করে মমতা ব্যানার্জি বলেছিলেন, দলটি ধর্মের সঙ্গে রাজনীতিকে মিশিয়ে পশ্চিমবঙ্গে অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন: স্লোগানটি নিয়ে তার কোনো আপত্তি নেই। আপত্তি বিজেপি কর্মীদের এই স্লোগান ব্যবহারের ধরন নিয়ে।

এর জবাবে কনিষ্ঠ পরিবেশ মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় বার্তা সংস্থা এএনআই’কে বলেন, একজন অভিজ্ঞ রাজনীতিক হয়েও মমতার আচরণ খুবই অস্বাভাবিক এবং অদ্ভুত।

‘তার নিজের পদের মর্যাদা ধরে রাখার বিষয়টি মাথায় রাখা উচিত। ওনার আসলে কিছুদিনের ছুটি নেয়া দরকার। উনি বাংলায় বিজেপির উপস্থিতি নিয়ে অস্থিরতায় আছেন,’ বলেন তিনি।

বাবুল বলেন, ‘তাকে (মমতা) নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অসংখ্য মেমে আছে। এটা কারও ভাবমূর্তির জন্যই ঠিক নয়। আমার আসানসোল আসনের পক্ষ থেকে মমতা ব্যানার্জিকে আমরা ‘গেট ওয়েল সুন’ কার্ড পাঠিয়ে দেবো। নিশ্চিতভাবেই দিদির কোনো একটা কিছু ভালো নেই, এবং কী ভালো নেই, এর উত্তর তাকেই বলতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

ইতোমধ্যে ‘জয় শ্রীরাম’ লেখা ১০ লাখ পোস্ট কার্ড তৃণমূল নেত্রী বরাবর পাঠানোর পরিবল্পনা করেছে বিজেপি। সেই প্রসঙ্গেই এই কথা বলেছেন বাবুল সুপ্রিয়।

১৭তম লোকসভা নির্বাচনে মমতা ব্যানার্জির দল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী মুনমুন সেনকে আসানসোলে ১.৯৭ লক্ষ ভোটে হারিয়ে জয়লাভ করেন গায়ক থেকে রাজনীতিক হয়ে ওঠা বাবুল সুপ্রিয়।

এবারের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি তৃণমূলের ঘাঁটি পশ্চিমবঙ্গে ১৮টি আসন পেয়েছে। যেখানে ২০১৪ সালের নির্বাচনে সংখ্যাটি ছিল মাত্র ২। অন্যদিকে তৃণমূল ২২টি আসন পেয়ে কোনোমতে এগিয়ে গেছে।স্লোগান-মমতা-বাবুল সুপ্রিয়

পশ্চিমবঙ্গে প্রথমবারের মতো বিজেপি-তৃণমূল হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর থেকেই বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা ছিল, এবার রাজ্যটিতে শুরু হবে দুই দলের রাজনৈতিক লড়াই। তার উদাহরণ পাওয়া গেল এই স্লোগান বিতর্কেই।

গত সপ্তাহে ব্যারাকপুরে এক বিজেপি কর্মীর বাসার বাইরে একদল বিজেপি সমর্থক ‘জয় শ্রীরাম’ বলে চিৎকার করে স্লোগান দেয়ার ঘটনা থেকেই এই জটিলতার শুরু হয়। ওই সময় কাছাকাছি একটি অফিসে স্থানীয় তৃণমূল নেতারা বৈঠক করছিলেন।

এ প্রসঙ্গেই রোববার এক ফেসবুক পোস্টে মমতা ব্যানার্জি বলেন, তিনি স্লোগানটিকে সম্মান করেন। কিন্তু বিজেপির ‘ভুল প্রক্রিয়ায়’ একে ব্যবহারের বিরোধী তিনি।

পোস্টে তিনি আরও লিখেছেন: ‘ভাঙচুর ও সহিংসতার মধ্য দিয়ে ধর্মীয় ঘৃণার ব্যবসা করার একটি উদ্দেশ্যমূলক চেষ্টা এটি। আমাদের সবাইকে মিলেমিশে এর প্রতিবাদ করতে হবে। কয়েকজন মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টায় অনেক সময় কেউ কেউ সফল হতে পারে, কিন্তু সব মানুষ একত্র থাকলে তাদেরকে সবসময় বোকা বানানো যায় না।’