চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভয়াবহ সামাজিক অবক্ষয় থেকে উত্তরণের উপায় কী?

সম্প্রতি একটি একটি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে সারাদেশে গত ৯ দিনে ৪৪ জন শিশু ধর্ষণ ও ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হয়েছে। এই পরিসংখ্যানই বলে দেয়, কী ভয়াবহ এক নৈরাজ্যের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে আমাদের সমাজ।

বিজ্ঞাপন

গত ১ মে থেকে ৯ মে পর্যন্ত এই ৯ দিনে এসব ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষণের শিকার ৪১ শিশুর মধ্যে মেয়ে শিশু ৩৭ জন, ছেলে শিশু ৪ জন। ছয়টি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত সংবাদ বিশ্লেষণ করে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন এই তথ্য পেয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সংগঠনটি আরও বলছে: চলতি মাসে ধর্ষণের চেষ্টা চালানো হয়েছিল আরও ৩ শিশুর ওপর। এই সময়ে ধর্ষণের শিকার হয়ে মারা গেছে ৩ মেয়ে শিশু, আহত হয়েছে ৪১ জন শিশু। সম্প্রতি দেশে ধর্ষণ ও শিশু ধর্ষণের ঘটনা আশংকাজনকভাবে বেড়ে গেছে।

এই পরিসংখ্যানই বলে দিচ্ছে আমাদের বর্তমান সামাজিক ও রাজনৈতিক অবস্থার চরম অবনতি হয়েছে। আমাদের প্রচলিত মূল্যবোধ এখন শূন্যের কোটায়। এতে মানুষ হিসেবে আমরা একটি অতি বুনো ও আদিম সমাজে বসবাস করছি বলে মনে হয়। কারণ, একটি আধুনিক সভ্য সমাজের চিত্র এটি হতে পারে না।

আমরা একটি উন্নত অর্থনৈতিক সভ্য সমাজের স্বপ্নে এই দেশ স্বাধীন করেছিলাম। পাকিস্তানিদের সঙ্গে আমাদের লড়াইয়ে যে বৈষম্য ছিল মূল কারণ, সেই কারণেও ছিল উন্নততর মানবিক মূল্যবোধের একটি সমাজ বিনির্মাণের। স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পর আজ আমরা দেখি উঁচু উঁচু কিছু দালানকোঠা, রাস্তাঘাট আর প্রচুর বাণিজ্য ছাড়া আমাদের আসলে কোনো উন্নতি হয়নি। ধর্ষণ এখন এই দেশে মহামারি হিসেবে দেখা দিয়েছে। একবিংশ শতকের এই উন্নত বিশ্ব ব্যবস্থায় আমরা যেনো এক আদিম জাতি গোষ্ঠি।

আমরা মনে করি, শুধু অর্থনৈতিক উন্নয়ন কোনো সভ্য সমাজ নির্মাণে সহায়ক নয়। এই উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে আমাদের আত্মিক উন্নয়নও জরুরি। সামাজিক মূল্যবোধে আমরা যদি এখনই সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে না পারি তবে আমাদের সকল অর্জন ধূলিসাৎ হয়ে যাবে এই অবক্ষয়ের নিকট। প্রশাসনসহ সকল সংশ্লিষ্ট বিভাগকে এর দায় নিয়ে সমাজের এই নিম্নগামীতা দূর করতে হবে।