চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভোটের মাধ্যমে জনগণ স্বাধীনতা বিরোধীদের নিষিদ্ধ করেছে: ১৪ দল

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের মাধ্যমে জনগণের স্বাধীনতা বিরোধীদের নিষিদ্ধ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। ১৪ দল ও জোটের পক্ষে এ মন্তব্য করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

নাসিম বলেন: স্বাধীনতা বিরোধীদের চূড়ান্তভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে দেশের তরুণ সমাজ। এ নির্বাচনে অপশক্তির চরম পতন হয়েছে। দেশের জনগণই তাদের নিষিদ্ধ করে দিয়েছে। বিএনপি- ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনী খেলায় হেরেছে। ওরা অনেক কথাই বলেছে, কোনো কথাই রাখেনি।

বুধবার দুপুরে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব বলেন।

তিনি আরও বলেন: ১৯৭১ সালের পর আরেকটি অবিস্মরণীয় বিজয়। এই নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিজয় হয়েছে। গণতন্ত্রের বিজয়। এই বিজয় জনগণের নেতৃত্বে শেখ হাসিনার বিজয়। শেখ হাসিনা নেতৃত্বে৭১ এর পরাজিত শক্তিকে চূড়ান্ত ভাবে পরাজিত করতে পেরেছি।

‘নির্বাচন বানচাল করার টালবাহানা শুরু করেছিলো বিএনপি-জামায়াত। দেশের জনগণ ঐক্যবদ্ধ থাকায় আমরা এ বিজয় অর্জন করেছি।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বলেন: আশাকরি ঐক্যফ্রন্টের নেতারা মাথা গরম না করে, শপথ নিয়ে ইতিবাচক রাজনীতি শুরু করবে।

সংবাদ সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন: এ নির্বাচনে দেশবাসী ২টি রায় দিয়েছে। একটি হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে, বিএনপি- জামায়াতকে বর্জনের জন্যে। আরেকটি রায় হচ্ছে জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে, উন্নয়নের পক্ষে।

এসময় ১৪ দলের আরেক নেতা সমাজকল্যাণমন্ত্রী বলেন: এই নির্বাচনে দেশের মানুষ উন্নয়ন, স্থিতিশীলতা ও ধারাবাহিকতার পক্ষে রায় দিয়েছে। বিরোধীরা নতুন করে সংগঠিত হয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করবে। তারা নির্বাচন চলাকালীন সময়ে কোনো অভিযোগ দেখাতে পারেনি। নির্বাচন নিয়ে বিশ্ববাসী সন্তুষ্টি প্রকাশ করে। আওয়ামী লীগ ও ১৪ দলকে অভিন্দন জানিয়ে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, সাবেক শিল্পমন্ত্রী ও সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর ব্যরিস্টার বিপ্লব বড়ুয়াসহ অনেকে।