চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ব্রিটিশ নাগরিকত্ব হারাচ্ছেন শামীমা বেগম

ব্রিটিশ নাগরিকত্ব হারাচ্ছেন আইএসে যোগ দিতে যুক্তরাজ্য থেকে সিরিয়া যাওয়া বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শামীমা বেগম। তবে এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করার কথা জানিয়েছেন তার পরিবার।

বিজ্ঞাপন

ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ বলছে, ১৯ বছর বয়সী শামীমা বেগম যেহেতু অন্য দেশের নাগরিকত্ব পাওয়ার যোগ্য, তাই তার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব কেড়ে নেয়া যেতে পারে। এরই মধ্যে শামীমার পরিবারকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েও দিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

শামীমার পারিবারিক আইনজীবী তাসনিম আকুনজি জানিয়েছেন, নাগরিকত্ব বাতিলের সিদ্ধান্তে তারা খুবই হতাশ। এ সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করতে ‘সবরকম আইনি উপায়’ বিবেচনা করা হচ্ছে বলে তিনি গণমাধ্যমকে জানান।

বিজ্ঞাপন

২০১৫ সালে মাত্র ১৫ বছর বয়সে শামীমা বেগম জঙ্গি সংগঠন আইএসের সঙ্গে জীবন কাটাতে আরও দুই বন্ধুর সঙ্গে সিরিয়ার উদ্দেশে যুক্তরাজ্য ছেড়ে চলে যান। গত সপ্তাহে এক শরণার্থী শিবিরে তাকে পাওয়া যায়।

সিরিয়ায় তিনি এক আইএস যোদ্ধাকে বিয়ে করেন এবং তিনটি সন্তানের জন্ম দেন। তার মধ্যে দুটি শিশু জন্মের পরই মারা যায়। তবে তার তৃতীয় ছেলেটি বেঁচে যায়।

সিরিয়ার শরণার্থী ক্যাম্পে বসবাসরত সম্প্রতি এক ছেলের জন্ম দেয়া শামীমা বর্তমানে যুক্তরাজ্যে ব্রিটেনে ফেরার আগ্রহ প্রকাশ করেন

কিন্তু আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী তাকে আবার ফিরিয়ে নেয়া বাধ্যতামূলক। ব্রিটেনের ১৯৮১ সালের নাগরিকত্ব আইনেও বলা হয়েছে, স্বরাষ্ট্র সচিব কারও নাগরিকত্ব বাতিল করে দেয়ার ক্ষমতা পেলেও কাউকে রাষ্ট্রহীন করতে পারেন না।

ব্রিটিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আইএসে যোগ দেয়া কাউকে উদ্ধার করতে কর্মকর্তাদের ঝুঁকিতে ফেলতে চায় না যুক্তরাজ্য।