চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বেশ কয়েকটি নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করে এসসিএল

ক্যামব্রিজ অ্যানালাইটিকার মূল প্রতিষ্ঠান এটি

লাখ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য চুরির সঙ্গে জড়িত ক্যামব্রিজ অ্যানালাইটিকার মূল প্রতিষ্ঠান স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশন ল্যাবরেটরিস (এসসিএল) ইলেকশনস-এর বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি নির্বাচনে প্রভাবিত করার সত্যতা পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞাপন

এসসিএল’র প্রকাশিত একটি পুস্তিকায় এসব নির্বাচন প্রভাবিত করার উল্লেখ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

এসসিএল উল্লেখ করেছে, তারা ২০০৭ সালে নাইজেরিয়ার নির্বাচনে বিরোধী দলের সমর্থন দুর্বল করতে র‌্যালির আয়োজন করেছিল।

তবে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তর জানিয়েছে, এসসিএল ২০০৮ সালে সরকারের সঙ্গে চুক্তি করার আগে তারা এসব অভিযোগের বিষয়ে অজ্ঞাত ছিল।

আর ক্যামব্রিজ অ্যানালাইটিকা বলছে, তারা এসসিএল সর্ম্পকে এসব অভিযোগের বিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছে।

এসসিএল তাদের ওই পুস্তিকায় লিখেছে, নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিরোধীদলের ভোটারদের নির্বাচন থেকে ফিরিয়ে আনতে তারা কীভাবে ‘‘নির্বাচন বিরোধী র‌্যালির” আয়োজন করেছিল। ওই নির্বাচনকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পর্যবেক্ষক দল অন্যতম কম গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হিসেবে বর্ণনা করে।

বিজ্ঞাপন

একইভাবে এসসিএল ২০০৬ সালে লাটভিয়ার জাতীয় নির্বাচনে তাদের সেবাগ্রহণকারীদের সহযোগিতা করার পরিবর্তে অনবরত জাতিগত উত্তেজনা ছড়াচ্ছিল।

এছাড়াও তারা ২০১০ সালে ত্রিনিদাদ ও টোবাকোর নির্বাচনের আগে “উচ্চাভিলাসী রাজনৈতিক দেয়ালচিত্র” অংকন করে, যা তরুণদের নির্বাচনে আসতে অনুৎসাহী করে।

এই পুস্তিকার বেশিরভাগ উদাহরণই এসসিএল’র সঙ্গে ব্রিটিশ সরকারের কমপক্ষে ৬টি চুক্তি করতে যাওয়ার আগের।

এসসিএল’র সঙ্গে চুক্তি করার আগে তাদের সম্পর্কে ব্রিটিশ সরকারের খোঁজখবর নেয়া উচিত ছিল বলে সমালোচনা করছেন অনেক।

এর আগে ক্যামব্রিজ অ্যানালাইটিকা কেলেঙ্কারির বিষয়ে ভুল স্বীকার করেছেন ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ। থার্ড পার্টি অ্যাপের মাধ্যমে ফেসবুক ইউজারদের তথ্য ফাঁস হয়েছে বলেও জানান তিনি।

২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে করা সব জরিপ মিথ্যা প্রমাণ করে দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তার এমন জয়ে একটি ফেসবুক অ্যাপ ভূমিকা রেখেছিল বলে অভিযোগের ভিত্তিতে ভুল স্বীকার করেন মার্ক জাকারবার্গ।