চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিয়ের দিনে ম্যাচ, কি করবেন মুমিনুল?

বিয়ের দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছিল এপ্রিলের শুরুতেই। ১৯ তারিখ যেন প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ না পড়ে সে প্রার্থনায় ছিলেন মুমিনুল হক। বিয়ের দিন যেন লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের ম্যাচ না দেয়া হয় সেজন্য ব্যক্তিগতভাবে অনুরোধও করেছিলেন লিগের আয়োজক কমিটির কাছে। শেষপর্যন্ত বিয়ের দিনই পড়েছে মুমিনুলের দল রূপগঞ্জের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটা।

মুমিনুল প্রথমে ভেবেছিলেন ম্যাচ খেলে রাতে বসবেন বিয়ের পিঁড়িতে। কিন্তু ম্যাচের ভেন্যু যে সাভারের বিকেএসপি! সেখান থেকে বসুন্ধরার বাসায় ফিরে তৈরি হয়ে মিরপুরের পিএসসি কনভেনশন হলে যাওয়ার ঝক্কি নেয়া থেকে বিরতই থাকছেন। বিয়ের জন্য লিগের একটি ম্যাচ ‘কোরবানি’ করতে হচ্ছে বাংলাদেশের টেস্ট স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যানকে।

বিজ্ঞাপন

মুঠোফোনে মুমিনুল জানালেন, ‘ম্যাচটা খেলা হচ্ছে না। নতুন জীবন শুরু করতে যাচ্ছি। দোয়া করবেন।’

বিজ্ঞাপন

শেষ ম্যাচে হেরে গেলেও ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে শিরোপার দৌড়ে এগিয়ে আছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। আরেক শিরোপা প্রত্যাশী আবাহনীর সঙ্গে তাদের পয়েন্ট ব্যবধান অবশ্য কমে এসেছে। দুই জায়ান্টের মধ্যে ব্যবধান কেবল এক ম্যাচের (২ পয়েন্ট)।

ফর্মে থাকা মুমিনুলকে ছাড়াই শুক্রবার দোলেশ্বরের বিপক্ষে নামতে হবে রূপগঞ্জকে। দলটির কোচ আফতাব আহমেদ কিছুটা চিন্তিত তিন নম্বরে মুমিনুলের জায়গায় কাকে খেলাবেন সেটি নিয়ে। চ্যানেল আই অনলাইনকে বললেন, ‘কিছু করার নেই। বিয়ের দিনে ম্যাচ পড়ে গেছে। মুমিনুল দারুণ ফর্মে ছিল। আমাদের ইনিংসটা গড়ে উঠছিল ওকে কেন্দ্র করেই। শুক্রবারের ম্যাচে মুমিনুলকে অবশ্যই মিস করব আমরা। তার জায়গায় একজন ব্যাটসম্যানই খেলানোর পরিকল্পনা আমাদের। টিম মিটিং করে আমরা সিদ্ধান্ত নেব কাকে নামানো যায়।’

আগেই আকদ সেরে ফেলা মুমিনুল বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারছেন শুক্রবার রাতে। কনে ফারিহা বাশারের বাসা মিরপুর ডিওএইচএসে। তিনি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী। তার আরেকটি পরিচয় তিনি ক্লাব ক্রিকেটের পরিচিত মুখ সৈকত আলীর শ্যালিকা।

মুমিনুল ও সৈকত বিকেএসপিতে থাকতেন একইকক্ষে। মুমিনুলের পছন্দ-অপছন্দের ব্যাপারটি খুব ভালো জানা ছিল সৈকতের। তার মাধ্যমেই মুমিনুল পরিচিত হন ফারিহার সঙ্গে। চার বছরের প্রেমের সেই সম্পর্ক পাচ্ছে শুভ পরিণতি।