বিড়াল ভেবে কিনলেন ব্যাঘ্র শাবক

খুব শখ করে বিড়াল পালবে বলে ফরাসি এক দম্পতি সাভানাহ প্রজাতির এক বিড়াল কিনলেন ৬ হাজার ইউরো দিয়ে। তবে কিছুদিনের মধ্যেই বুঝতে পারলেন, বিড়ালটি একটি বাঘের শাবক!

ডেইলি মেইলের সূত্রে জানা যায়,অনলাইনে বিজ্ঞাপন দেখে ফ্রান্সের নর্ম্যান্ডির এই অজ্ঞাতপরিচয় দম্পতি বিড়ালের বাচ্চা ভেবে কিনে আনেন বাঘের শাবকটি।

এই দম্পতি দাবি করেছেন, তারা ঠিক বুঝতে পারেন নি যে তাদের বিড়ালটির সাথে বাঘের পার্থক্য থাকলেও আসলেই এটি ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা অঞ্চলের একটা বাঘ।

যদিও সাভানাহ বিড়াল পোষা প্রানী হিসাবে গ্রহণযোগ্য অনেক দেশেই, তবে বাঘের শাবক অনুমতি ছাড়া পোষা প্রাণী হিসেবে রাখা যায় না, এমনকি কাগজপত্র ছাড়াও বাঘের শাবক পরিবহন করাও নিষেধ।

স্থানীয় সংবাদে বলা হয়েছে, এর আগে বড় প্রজাতির বিড়াল কেনার জন্য এক দম্পতি সহ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঐ দম্পতির বিরুদ্ধে প্রাণী পাচারের অভিযোগ ওঠে এবং পরে পুলিশ তাকে ছেড়ে দেয়।

তবে পশু পাচার ও সংগঠিত অপরাধের অভিযোগ পেলেই তাকে গ্রেপ্তার করা হবে বলে সর্তক করেছেন ফ্রান্সের পুলিশ।

বাঘের শাবকটিকে উদ্ধার করে ফ্রান্সের জীববৈচিত্র্য অফিসে একটি আলাদা কক্ষে রাখা হয়েছে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.