চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশ্বকাপের দেশে বাংলাদেশ

ডাবলিন ছেড়ে লেস্টারে দল, ঢাকায় মাশরাফী

বিশ্বকাপের আগে ত্রিদেশীয় সিরিজ জয় বাংলাদেশ দলকে কতটা উজ্জীবিত করেছে তা ক্রিকেটারদের চেহারাতেই মূর্ত হয়ে উঠছে। ফেসবুকে একের পর এক ছবি পোস্ট করে যাচ্ছেন তারা। চওড়া হাসির সেলফি দিয়ে মোস্তাফিজুর রহমান শনিবার রাতে জানান দেন, ডাবলিন ছেড়েছেন। মধ্যরাতে সৌম্য সরকার আরেকটি ছবি পোস্ট করে ভক্তদের জানান, বাংলাদেশ দল পৌঁছে গেছে বিশ্বকাপের দেশ ইংল্যান্ডে। তাদের হাস্যোজ্জ্বল ছবির শিরোনামেও ফুটে ওঠে বিশ্বকাপ অভিযান নিয়ে মনের ভেতরের রোমাঞ্চ।

বিজ্ঞাপন

লন্ডন থেকে তিন ঘণ্টার বাস জার্নি শেষে টিম টাইগার্স লেস্টার পৌঁছেছে বাংলাদেশ সময় শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটায়। সেখানে বিসিবির খরচে টাইগাররা করবে চার দিনের অনুশীলন ক্যাম্প। আগামী বৃহস্পতিবার লেস্টার ছেড়ে তাদের ঠিকানা হবে কার্ডিফ। ওই দিন থেকে বাংলাদেশ থাকবে আইসিসির প্রটোকলে, পুরো দল নেবে বিশ্বকাপ আয়োজক দেশের আতিথেয়তা।

সাকিব-সৌম্য-সৈকতরা লন্ডন পৌঁছানোর কিছুক্ষণ আগে রাত সাড়ে ১১টায় ত্রিদেশীয় সিরিজের ট্রফি সঙ্গে নিয়ে ঢাকায় ফেরেন মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর বহুজাতিক আসর খেলে পাওয়া প্রথম ট্রফিটি ছিল প্যাকেটবন্দী।

বিজ্ঞাপন

ব্যক্তিগতভাবে ছুটিতে আসায় বিমানবন্দরে ক্রিকেট নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বলতে রাজী হননি অধিনায়ক। কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে মাশরাফী বললেন, ‘পুরো টিম আসেনি। যারা খেলেছে মাঠে কষ্ট করেছে তারা ডিজার্ভ করে এখানে থাকার। আমি এসেছি ছুটিতে, তো এখানে আমার একা কথা বলাটা ঠিক হবে না। আপনারা কষ্ট করে এসেছেন এজন্য ধন্যবাদ।’

মাশরাফীর সঙ্গে ডাবলিন ছেড়ে আসা তামিম ইকবাল থেকে যান দুবাই। তার পরিবার সেখানে আগে থেকেই ছিল অপেক্ষায়। দুবাই থেকে তামিম লন্ডন ফিরবেন বুধবার। বৃহস্পতিবার কার্ডিফে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন টাইগার ওপেনার। মাশরাফীর সঙ্গে আরও ফিরেছেন বিশ্বকাপ স্কোয়াডে না থাকা চার ক্রিকেটার ফরহাদ রেজা, তাসকিন আহমেদ, ইয়াসির আলি রাব্বি ও নাঈম হাসান।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে মাশরাফী ঢাকায় পরিবারের সঙ্গে কাটাবেন তিন দিন। বিশ্বকাপ মিশনের জন্য তাকে লন্ডন যেতে হবে ২৩মে। ঐদিন বিশ্বকাপের অংশ নিতে যাওয়া দশ দলের অধিনায়কদের নিয়ে রয়েছে আইসিসির একটি অনুষ্ঠান। সেখান থেকেই প্রস্তুতি ম্যাচের ভেন্যু কার্ডিফে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন অধিনায়ক।

আগামী ২৬ ও ২৮ মে কার্ডিফে ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ২৯ মে কার্ডিফ থেকে লন্ডনে ফিরবে দল। ২ জুন ওভালে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে ওভালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ সাউথ আফ্রিকা। একে একে অংশগ্রহণকারী সব দেশের সঙ্গেই খেলবে মাশরাফীর দল।

গত বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা বাংলাদেশ এবার চায় আরেকধাপ এগিয়ে সেমিফাইনালে লড়তে। যে লক্ষ্যের সঙ্গে একাত্ম কোচ, অধিনায়ক থেকে শুরু করে দলের সবাই। বড় মঞ্চে সফল হতে ত্রিদেশীয় সিরিজের অভাবনীয় সাফল্য হতে পারে বড় অনুপ্রেরণা।