চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশৃঙ্খলার কারণে বেগম রোকেয়া হলে ভোট বন্ধ, নুরকে মারধর

বিশৃঙ্খলার অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম রোকেয়া হলে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ বন্ধ রাখা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

তিনটি ব্যালট বাক্স সরিয়ে রাখার অভিযোগ নিয়ে সৃষ্ট বিশৃঙ্খলায় ভোটগ্রহণ বন্ধ করে দেয়া হয়।

এই বিশৃঙ্খলার মাঝে কোটা আন্দোলনকারী প্যানেলের সহ-সভাপতি (ভিপি) প্রার্থী নুরুল হক নূর মারধরের শিকার হয়েছেন। তার অভিযোগ, ছাত্রলীগ প্যানেলের লোকজন তাকে আঘাত করেছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে সোমবার সকাল ৮টায় প্রায় সব হলে ডাকসু নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হলেও রোকেয়া হলে প্রায় এক ঘণ্টা দেরিতে শুরু হয়েছিল ভোট। এর কিছুক্ষণ পরই একাধিক প্রার্থী অভিযোগ করতে থাকেন যে, তিনটি ব্যালট বাক্স সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

বাম জোট থেকে বেগম রোকেয়া হলের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী জিএস মুনিরা দিলশাদ ইরা সাংবাদিকদের বলেন, ‘সকালে যখন ভোট শুরু হয়, তখন আমরা ব্যালট বাক্স দেখতে চাইলেও দেখানো হয়নি। পরে আমরা বিক্ষোভ শুরু করলে ৯টার দিকে ব্যালট বাক্স দেখানো হয়। রোকেয়া হলে ব্যালট বাক্স থাকার কথা ৯টি। তবে আমাদেরকে দেখানো হয়েছে ছয়টি।’

রোকেয়া হলে ভোটকেন্দ্র করা হয়েছে টিভি রুমে। সেখানে গণমাধ্যম কর্মীদের যেতে দেয়া হচ্ছে না। হল গেট থেকে বলা হচ্ছে এখন ভেতরে যাওয়া যাবে না।

এই তিনটি ব্যালট বাক্স সরিয়ে ফেলার অভিযোগ থেকে শুরু বিক্ষোভ-বিশৃঙ্খলার পরিপ্রেক্ষিতে হলে ভোটগ্রহণ বন্ধ করে দেয়া হয়।

এর আগে সকালে বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলে হাজারখানেক ব্যালট পেপারে আগে থেকে সিল মারা থাকার কারণে বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরা ভোট বর্জন করে। ১১টা ১০ মিনিট পর্যন্ত স্থগিত থাকার পর হলের প্রাধ্যক্ষ ড. শবনম জাহানকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে নতুন প্রাধ্যক্ষ নিয়োগের পর সেখানে ভোটগ্রহণ শুরু হয়