চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিম ভেঙে শিক্ষার্থী হতাহতের ঘটনায় কেন ক্ষতিপূরণ নয়: হাইকোর্ট

বরগুনার তালতলীর ছোটবগি পিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাদের ফাটল ধরা বিম ভেঙে নিহত ও আহত শিক্ষার্থীদের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা, জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

সুপ্রিম কোর্টের মো.ইশতিয়াক আহমেদের করা এক রিটের শুনানি নিয়ে বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ রোববার এ রুল জারি করেন।

এদিকে শ্রেণিকক্ষের বিম ধসে পড়ে ছাত্রী নিহতের ঘটনায় দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।আগামী দুই কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে গভীর শোক এবং সমবেদনা প্রকাশ করা হয়।

এ আইনজীবী নিজেই রিটের পক্ষে শুনানি করেন। আদালত তার রুলে, ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা বিধানে বিবাদীদের ব্যর্থতা কেন আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না এবং হতাহত শিক্ষার্থীদের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে, না তা জানতে চেয়েছেন।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, বরগুনার জেলা প্রশাসক, বরগুনার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, তালতলী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও স্কুলটির পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এত আগে গত শনিবার বরগুনার তালতলীর ছোটবগি পিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাদের ফাটল ধরা বিম ধসে পড়ে মানসুরা (৮) নামের তৃতীয় শ্রেণির এক শিক্ষার্থী নিহত হয়। আহত হয় আরও কয়েকজন। তাদের মধ্যে তিন জনকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ঘটনার পর ছোটবগি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাকেরিন জাহান সাংবাদিকদের জানান, তিন কক্ষের একতলা বিদ্যালয় ভবনটি ২০০২ সালে নির্মাণ করা হয়েছিল। ভবনটি নির্মাণ করেন বরগুনা-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মতিয়ার রহমান তালুকদারের ভাগ্নে ও সেতু এন্টারপ্রাইজের মালিক আবদুল্লাহ আল মামুন। কিন্তু নির্মাণের ১ বছরের মধ্যেই গ্রেড বিমে ফাটল ধরে।

এই ঘটনার প্রেক্ষাপটে এই রিটের বাইরে আজ আর একটি রিট হয়। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হাসান তারেক পলাশ ও ল’ এন্ড লাইফ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে রোববার এ রিটটি করা হয়।

ওই রিটে নিহত তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী মানসুরার পরিবারের জন্য ১ কোটি টাকা এবং আহতদের জন্য ১০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়। সেই সাথে আহতদের জন্য পর্যাপ্ত চিকিৎসা দেওয়ার নির্দেশনাও চাওয়া হয়।