চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গাজায় হামাসের ঘাঁটিতে ইসরায়েলের বিমান হামলা

ফিলিস্তিনের ইসলামিস্ট রাজনৈতিক দল হামাসের কয়েকটি ঘাঁটি লক্ষ্য করে অভিযান ও বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। হামাসকে ‘জঙ্গি গোষ্ঠী’ হিসেবে উল্লেখ করে ইসরায়েলের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, হামাসের মিসাইল হামলার জবাবে এ হামলা চালিয়েছে তারা।

বিজ্ঞাপন

ইসরায়েলের দাবি, শুক্রবার স্থানীয় সময় রাতে ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে ফিলিস্তিনের গাজা থেকে তিনটি মিসাইল ছোড়ে হামাসের বাহিনী। তিনটির মধ্যে একটি ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী ধ্বংস করতে সফল হয়, একটি মিসাইল জনমানবশূন্য একটি এলাকায় খুঁজে পায় আর তৃতীয়টি সেদেরত নামক শহরে আঘাত করে। যদিও এতে কোনো হতাহতের খবর জানানো হয়নি।

এই মিসাইল হামলার জবাবে ওই দিনই ইসরায়েলি বিমানবাহিনী হামাসের অধীনস্থ বেশকিছু এলাকায় বিমান হামলা চালায়। হামলায় ২৫ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এরপর শনিবার ভোরের দিকে ইসরায়েলের পক্ষ থেকে আরও কয়েকটি হামলা চালানো হয়। তবে সেই হামলার বিস্তারিত জানা যায়নি এখনো। অবশ্য ইসরায়েলি বাহিনী জানিয়েছে, হামাসের একটি অস্ত্র কারখানা এবং গোলাবারুদর গুদামে হামলা চালানো হয়েছে।জেরুজালেম-ইসরায়েল-জাতিসংঘ-বিক্ষোভে নিহত-বিমান হামলা

বিজ্ঞাপন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার ঘটনা ইসরায়েল-ফিলিস্তিন দ্বন্দ্বের আগুনে নতুন করে ঘি ঢেলেছে। তারপর থেকেই চলছে বিশ্বজুড়ে এ সিদ্ধান্তের নিন্দা ও প্রতিবাদ।

জেরুজালেমের ঘটনায় ওই অঞ্চলে বিক্ষোভকারী ফিলিস্তিনি জনগোষ্ঠী এবং ইসরায়েলি বাহিনীর মধ্যে থেমে থেমে সংঘর্ষ চলছে। সংঘর্ষে শুক্রবার গাজায় ভিড় লক্ষ্য করে ইসরায়েলি বাহিনীর ছোড়া গুলিতে দুই ফিলিস্তিনি নিহত হয়। আহত হয় কয়েকশ’।

মার্কিন দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্তের প্রসঙ্গে শুক্রবার হামাসের এক সিনিয়র নেতা ফাতহি হামাদ বলেন, যে-ই জেরুজালেমে দূতাবাস সরিয়ে নেয়ার কথা ভাববে সে-ই ফিলিস্তিনিদের শত্রু।

জেরুজালেম-ইসরায়েল-জাতিসংঘ-বিক্ষোভে নিহত-বিমান হামলাঅন্যদিকে আবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ডাকা জরুরি বৈঠকে ট্রাম্প প্রশাসনের নেয়া পদক্ষেপের কারণে তোপের মুখে পড়ে জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হেইলি দাবি করেন, পৃথিবীতে ইসরায়েলের সবচেয়ে বেশি বিরুদ্ধে থাকা পক্ষগুলোর একটি হলো জাতিসংঘ। আত্মপক্ষ সমর্থন করে হেইলি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র শুধু অবশ্যম্ভাবী বাস্তবতাটাকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে শান্তি প্রক্রিয়া বিনষ্ট করার দায় এই আন্তর্জাতিক সংস্থার বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, জাতিসংঘ ইসরায়েল ফিলিস্তিন ইস্যুতে বরাবরই পক্ষপাতিত্ব করে আসছে। যুক্তরাষ্ট্র এখনো ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মাঝে একটি দীর্ঘস্থায়ী শান্তিচুক্তি অর্জনে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বলেও জানান হেইলি।