চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিফলে যায়নি সাব্বিরের ফিফটি

ব্রাদার্সকে হারাল আবাহনী

শুরু এবং শেষটায় নড়বড়ে ব্যাটিং। মাঝে সাব্বির রহমানের ৫৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। তাতে আবাহনীর স্কোরবোর্ডে জমা পড়ল ১৫০ রান। মাঝারি পুঁজি নিয়েও ব্রাদার্সকে চাপে রাখল আকাশী-নীল শিবির। বল হাতেও দ্যূতি ছড়ালেন সাব্বির। লেগ স্পিন করে নিলেন ২ উইকেট। আর তাতে প্রিমিয়ার টি-টুয়েন্টি টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ২৫ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের দল।

বিজ্ঞাপন

সংক্ষিপ্ত স্কোর: আবাহনী লিমিটেড- ১৫০/৭, ব্রাদার্স ইউনিয়ন-১২৫/৭

মাঝারি লক্ষ্যে ব্যাটিয়ে নেমে জয়ের আশা জাগিয়েছিল ব্রাদার্স। ১৩ ওভার পর্যন্ত পরিস্থিতি ছিল তাদের অনুকূলে। ৪১ রানের ইনিংস খেলে ইয়াসির আলি রাব্বি সাজঘরে ফিরতেই বদলে যায় ম্যাচের চেহারা। একের পর উইকেট তুলে ব্রাদার্সের রান তোলার গতি কমিয়ে দেন আবাহনী বোলাররা। মোহাম্মদ শরিফউল্লাহর ২৮ রানের অপরাজিত ইনিংস কেবল হারের ব্যবধান কমাতেই ভূমিকা রেখেছে।

ব্রাদার্স ওপেনার মিজানুর রহমান করেন ৩০ রান। তাদের তিন ব্যাটসম্যান ছাড়া আর কেউই ছাড়াতে পারেননি দুই অঙ্ক। সাব্বিরের সমান ২টি উইকেট নিয়েছেন বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। তাপস ঘোষ ও মোসাদ্দেক নেন একটি করে উইকেট।

বিজ্ঞাপন

শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫০ রান তোলে আবাহনী। শুরুটা ভাল না হলেও সাব্বির রহমানের ফিফটি ও জাহিদ জাভেদের ৪৪ রানের ইনিংসে পায়ের তলায় মাটি পায় আবাহনী।

তাদের শুরুটা হয়েছিল খুবই বাজে। দলীয় ৭ রানের মাথায় সাজঘরে ফেরেন দুই ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার (৩) ও নাজমুল হোসেন শান্ত (৩)। সাব্বির-মোসাদ্দেক তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৫২ রান তুলে শুরুর চাপ সামলে নেন।

১৮ বলে ২৩ রান করে মোসাদ্দেক সাজঘরে ফিরলে ভাঙে পঞ্চাশ পেরোনো জুটিটি। পরে সাব্বিরের সঙ্গে জুটি গড়ে ওঠে জাভেদের। দুজন মিলে যোগ করেন আরও ৫৮ রান। দলীয় ১১৭ রানের মাথায় সাব্বির ফেরেন সাজঘরে। তখনও ইনিংসের বাকি ২৮ বল। তবে সেখান থেকে ৩৩ রানের বেশি তুলতে পারেনি আবাহনী।

নিউজিল্যান্ড সফরে তৃতীয় ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে দেশে ফেরা সাব্বিরের ৪৩ বলে ৫৮ রানের ইনিংসে ছিল ৫টি চার ও ২টি ছয়ের মার।

ব্রাদার্সের রনি হোসেন ও মেহেদী হাসান নেন দুটি করে উইকেট। একটি করে উইকেট নিয়েছেন হাবিবুর রহমান জনি, সাখাওয়াত হোসেন ও মোহাম্মদ শাহজাদা।