চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিদেশে গিয়ে যৌন হয়রানির শিকার কর্মীদের তালিকা চেয়েছেন হাইকোর্ট

বাংলাদেশ থেকে কতজন কর্মী সৌদি আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গেছেন এবং কতজন শারীরিক-যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন তার তালিকা দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিজ্ঞাপন

সেই সঙ্গে কতজন স্বেচ্ছায় বা সরকারের মাধ্যমে দেশে ফিরে এসেছেন সে তালিকাও চেয়েছেন আদালত।

এসংক্রান্ত এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি ফরিদ আহমেদ সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এই আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

আগামী এক মাসের মধ্যে প্রবাসীকল্যাণ সচিব, পররাষ্ট্রসচিব, জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক, ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের চেয়ারম্যান, বায়রার সভাপতি-সেক্রেটারিকে এই প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মাহফুজুর রহমান।

আদালত তার রুলে, কাজের জন্য সৌদিআরব সহ অন্যান্য দেশে বাংলাদেশের যেসব নারী কর্মী যাচ্ছেন, তাদের নিরাপত্তা, যারা শারীরিক-মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত, যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন, তাদের ক্ষতিপূরণ, পুনর্বাসন-প্রত্যাবাসনে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত হবে না, তা রুলে জানতে চেয়েছেন।

আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে পররাষ্ট্রসচিব, প্রবাসী কল্যাণ সচিবসহ ১১ বিবাদীকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া কর্মীদের নিরাপত্তা, মানসিক-যৌন হয়রানি, প্রত্যাবাসন-পুনর্বাসনে নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে জাস্টিস ওয়াচ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ও সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী এই রিটটি করেছিলেন।