চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীর লাশ: হোটেল থেকে তুলে নিয়ে হত্যার অভিযোগ

যশোর-৬ (কেশবপুর) আসন থেকে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী এক নেতাকে হোটেল থেকে ‘তুলে’ নেওয়ার পর বুড়িগঙ্গা থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

নিহত ব্যক্তি যশোর জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি ও চারবারের ইউপি চেয়ারম্যান আবু বকর আবু।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর অভিযোগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাকে হত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার রাতে নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আবু বকর আবু বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি’র মনোনয়ন ফরম জমা দিয়ে গুলশানস্থ বিএনপি চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ে সাক্ষাৎকার দেয়ার জন্য ঢাকার একটি হোটেলে অবস্থান করছিলেন।

“গত রোববার তাকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তুলে নিয়ে যাবার পর তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। বুড়িগঙ্গা নদীতে তার লাশ পাওয়া গেছে।”

রিজভী বলেন, এলাকার একজন জনপ্রিয় নেতা ও জনপ্রতিনিধি আবু বকর আবুকে নির্মমভাবে হত্যা করার পর লাশ বুড়িগঙ্গায় ফেলে দেয় হত্যাকারীরা। কোটা সংস্কার আন্দোলনে এভাবেই একজন আন্দোলনকারীর লাশ ভেসে উঠেছিল বুড়িগঙ্গায়।

বিএনপির নেতার অভিযোগ, সরকার এখন আগুন নিয়ে খেলা শুরু করেছে। চারবারের একজন জনপ্রিয় জনপ্রতিনিধিকে হোটেল থেকে তুলে নেয়া হলো, আর গায়েব করে হত্যা করার মাধ্যমে তার লাশ বুড়িগঙ্গায় ফেলা দেয়া হলো। বর্তমান সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় এজেন্সির মাধ্যমে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।

“গোটা দেশ এখন মৃত্যু উপত্যকায় পরিণত হয়েছে। দেশব্যপী প্রায় প্রতিদিনই বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে গুম করা হচ্ছে, হত্যা করে লাশ নদী, খাল-বিল কিংবা রাস্তার ধারে ফেলে দেয়া হচ্ছে।”

এসময় রিজভী আবু বকর আবু’র হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তীব্র ধিক্কার জানিয়ে অবিলম্বে হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি করেন।

তার আরো অভিযোগ, শাহবাগ থানাধীন ২০ নং ওয়ার্ড বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক ও ঢাকা মেডিকেল ইউনিট বিএনপি’র সভাপতি মোঃ আজিমকে আজ দুপুরে সাদা পোশাকধারী আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা আটক করে নিয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত স্বীকার করছে না। সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজ নিলেও তার সন্ধান মেলেনি। আমি অবিলম্বে মোঃ আজিমকে জনসমক্ষে হাজির করার জোর দাবি জানাচ্ছি।

এছাড়াও সূত্রাপুর থানা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সাত্তার, ৪৩ নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি কাউসার আহমেদ, সূত্রাপুর থানা বিএনপি নেতা মজিবুর রহমান আনু এবং শ্রমিক দল সূত্রাপুর থানা শাখার সহ-সভাপতি দেলোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ- অভিযোগ বিএনপির।