চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাবা-মেয়ের গল্পে সাড়া ফেলছে বাবুর ‘পোলাও মাংস’

রাজিব আহমেদের লেখা ও বিশ্বজিৎ দত্তের পরিচালনায় সাড়া ফেলছে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘পোলাও মাংস’

‘‘মা মরা একমাত্র মেয়ে টুপুরকে নিয়ে বাশারের সংসার। মেয়ের বয়স আর কতো পাঁচ কি ছয়! অভাব অনটনের সংসারে মেয়ের আড়ি একদিন পোলাও মাংস দিয়ে ভরপেট খাবে। বাবার কাছে আবদার করেও বিশেষ কোনো ফায়দা হয় না। মেয়েকে কথা দিয়ে গেলেও দিন শেষে শুকনো মুড়ি আর গুড় নিয়েই উপস্থিত হন বাবা। কিন্তু একদিন বেঁকে বসেন মেয়ে। তাকে পোলাও মাংসা খাওয়াতেই হবে। নাছোড়বান্দা মেয়ের কথায় অনেক কষ্ট করে বিয়ে বাড়ি থেকে পোলাও মাংসা নিয়ে উপস্থিত হন বাবা। এমনটা দেখে মেয়ের কি আনন্দ! তৃপ্তি নিয়ে সে পোলাও মাংস খায়। মেয়ের আবদার রক্ষা করতে পেরে বাবার চোখেও তৃপ্তির জল!

বিজ্ঞাপন

কিন্তু এরইমধ্যে ঘটে বিপত্তি। এমন খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে টুপুর। জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। মেয়েকে কোলে তুলে হাসাপাতালের দিকে দৌড়ান বাবা। শেষ পর্যন্ত কি মেয়েকে রক্ষা করতে পারবেন বাশার? হাসপাতাল পর্যন্ত পৌঁছাতে পারবেন? কিংবা হাসপাতালে গেলেও চিকিৎসার অর্থ যোগার করতে পারবেনতো? এমন অসংখ্য প্রশ্ন ঝুলে থাকে। কৌতুহলীদের জন্য ভয়েস ওভারে জানিয়ে দেয়া হয়, বাবারা কখনো দরিদ্র হন না, বাবারা কোনোদিন হারেন না!’’

-এমন অসাধারণ একটি গল্পের ভিজ্যুয়াল ‘পোলাও মাংস’। স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি। যেখানে বাবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু। পঁচিশ মিনিট ব্যাপ্তীর এই স্বল্পদৈর্ঘ্যটি নির্মাণ করেছেন বিশ্বজিৎ দত্ত। আর হৃদয় ছোঁয়া এই গল্পটি রচনা করেছেন জনপ্রিয় গীতিকার ও নাট্যকার রাজিব আহমেদ। গেল বাবা দিবস উপলক্ষ্যে ‘রেইন ফিল্মস’-এর ইউটিউব চ্যানেলে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি মুক্তি দেয়া হয়। ইতিমধ্যে ৫ লাখেরও বেশি মানুষ দেখে ফেলেছেন।

নাটক সিনেমার বাইরে ফজলুর রহমান বাবু ইদানিং বেশকিছু স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। তবে বাবা-মেয়ের হৃদয়স্পর্শী এমন গল্প নিয়ে তাকে বেশ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে দেখা গেলো। স্বল্পদৈর্ঘ্যটি ইউটিউবে রিলিজের পর ইতিমধ্যে অনেক রেসপন্স পেয়েছেন জানিয়ে চ্যানেল আই অনলাইনকে এই অভিনেতা বলেন, অনলাইনে ‘পোলাও মাংস’ যাওয়ার পর বেশ সাড়া পেয়েছি। এটা এমন একটা গল্প যাতে কাজ করার আগেই মনে হয়েছিলো মানুষের আবেগকে ছুঁয়ে যেতে পারবে। রিলিজ হওয়ার পর অনেকেই আমাকে ব্যক্তিগত ভাবে জানিয়েছেন, খুব ভালো একটা প্রোডাকশন হয়েছে ‘পোলাও মাংস’। মানুষের প্রশংসা শুনে আমারও বেশ ভালোই লেগেছে।

আসছে ঈদ। নতুন কাজ নিয়ে ব্যস্ততার কথা জানতে চাইলে তুখোড় এই অভিনেতা জানান, আগামী একমাস ‘নোনা জলের কাব্য’ নামের একটি চলচ্চিত্র নিয়ে ব্যস্ত থাকবো। ছবিটি দেশ বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে অনুদানপ্রাপ্ত। ছবির পরিচালনায় আছেন সুমিত শাহরিয়ার। জেলে পাড়ার গল্প নিয়ে এই ছবির কাহিনি। আশা করছি ভালো একটি সিনেমা হতে যাচ্ছে এটা।
স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘পোলাও মাংস’: