চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাংলা সাহিত্যের দুই নক্ষত্রের জন্মদিন আজ

সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক ৮৪তম জন্মদিন আজ। একই বছর একই দিনে জন্মদিন কথাসাহিত্যিক রাবেয়া খাতুনের।

বিজ্ঞাপন

সৈয়দ শামসুল হক
সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক বাংলা সাহিত্যে ছয় দশক ধরে গল্প, উপন্যাস, কবিতা, গান, নাটক, চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্যসহ সব শাখায় সাবলীল পদচারণা করেছেন। সাহিত্য চর্চায় লেখালেখিতে প্রতিটি ক্ষেত্রেই তিনি অসাধারণ সৃষ্টিশীলতার স্বাক্ষর রাখেন।

একুশে পদক ও স্বাধীনতা পুরস্কারসহ অসংখ্য সম্মাননায় সম্মানিত সৈয়দ হক।

বহুমাত্রিক এই গুণী লেখক জীবনের প্রায় শেষদিন পর্যন্ত লিখে গেছেন। ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে এই গুণী লেখক মৃত্যুবরণ করেন।

সাহিত্যের প্রতিটি শাখায় মেধার স্বাক্ষর রাখা সৈয়দ শামসুল হকের জন্ম ১৯৩৫ সালে কুড়িগ্রামে। সেখানেই স্কুল জীবন। এরপর জগন্নাথ কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

রাবেয়া খাতুন
বাংলা সাহিত্যে আরেক উজ্জ্বল নক্ষত্র রাবেয়া খাতুন। ১৯৩৫ সালে বিক্রমপুরে মামাবাড়িতে জন্ম তার। অবশ্য তার বাবার বাড়ি মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার ষোলঘর গ্রামে।

উপন্যাস, ছোটগল্প, ভ্রমণ কাহিনী, কিশোর উপন্যাস, স্মৃতিকথাসহ চলচ্চিত্র ও নাট্য জগতেও বিচরণ রাবেয়া খাতুনের। তার রচিত প্রথম উপন্যাসের নাম নিরাশ্রয়া এখনো অপ্রকাশিত। বিদায় ও  অশোক রেবা  উপন্যাস দুটিও অপকাশিত গ্রন্থ।

রাবেয়া খাতুন রচিত মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক জনপ্রিয় উপন্যাস ‘মেঘের পর মেঘ’ অবলম্বনে বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার চাষী নজরুল ইসলাম ২০০৪ সালে নির্মাণ করেন চলচ্চিত্র ‘মেঘের পরে মেঘ’ এবং ২০১১ সালে তার আরেকটি জনপ্রিয় উপন্যাস ‘মধুমতি’ অবলম্বনে পরিচালক শাহজাহান চৌধুরী একই শিরোনামে নির্মাণ করেন চলচ্চিত্র ‘মধুমতি’। এছাড়াও অভিনেত্রী মৌসুমী ২০০৩ সালে তার লেখা ‘কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি’ অবলম্বনে একই শিরোনামে নির্মাণ করেন একটি চলচ্চিত্র।

একুশে পদক, স্বাধীনতা পুরস্কার, বাংলা একাডেমি পুরস্কার, মাইকেল মধুসূদন পুরস্কার, হুমায়ূন কাদির স্মৃতি পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননায় ভূষিত এই গুণী কথাসাহিত্যিক।

পেশাজীবনে শিক্ষকতা এবং সাংবাদিকতা করেছেন রাবেয়া খাতুন। এছাড়া তিনি বাংলা একাডেমির কাউন্সিল মেম্বার। জাতীয় গ্রন্থ কেন্দ্রের গঠনতন্ত্র পরিচালনা পরিষদের সদস্য, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জুরিবোর্ডের বিচারক, শিশু একাডেমির কাউন্সিল মেম্বার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘নতুন কুড়ি’র বিচারক।

তার স্বামী প্রয়াত ফজলুল হক ছিলেন দেশের চলচ্চিত্র বিষয়ক প্রথম পত্রিকা ‘সিনেমা’র সম্পাদক ও চিত্রপরিচালক। বাংলাদেশের প্রথম শিশুতোষ চলচ্চিত্র ‘প্রেসিডেন্ট’-এর পরিচালকও ছিলেন তিনি।

নানা আয়োজনে উদযাপন হচ্ছে বাংলা সাহিত্যকে আলোকিত করা এই দুই গুণী মানুষ – রাবেয়া খাতুন এবং প্রয়াত সৈয়দ শামসুল হকের জন্মদিন।