চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাংলা বর্ষবরণে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে নানা প্রস্তুতি

প্রতিবারের মতো এবারও পুরানো বাংলা বর্ষকে বিদায় ও নতুন বর্ষ ১৪২৬’কে বরণ করতে নানা প্রস্তুতি চলছে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে। টানা ছুটির কারণে ১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখ কক্সবাজারে নামবে পর্যটকের ঢল। ইতোমধ্যে শহরের প্রায় হোটেল মোটেল অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে। সৈকতের থাকছে নানা আয়োজন।

বিজ্ঞাপন

বাংলা বর্ষকে বিদায় ও বরণ করতে কক্সবাজারে বিপুল সংখ্যক পর্যটক এর আগমন ঘটবে বলে জানিয়েছেন হোটেল মালিকরা।

হোটেল-মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী জানান, ১৪ এপ্রিলের সাথে যোগ হয়েছে শুক্রবার ও শনিবার এর সাপ্তাহিক ছুটি। টানা তিন দিন ছুটি পড়ায় হোটেলগুলোতে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।ইতোমধ্যে শহরের চার শতাধিক হোটেল-মোটেল এর প্রায় কক্ষ তিন দিনের জন্য বুকিং হয়ে গেছে বলেও জানান তিনি। বাংলা বর্ষকে বরণ করতে কক্সবাজার শহরের তারকা মানের হোটেল গুলোতে নানা আয়োজন রয়েছে বলেও জানান এ হোটেল মালিক।

বিজ্ঞাপন

জেলা রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কাশেম সিকদার বলেন, পহেলা বৈশাখকে সামনে রেখে রেস্টুরেন্টগুলোতে নানা প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।পহেলা বৈশাখ জেলা শহরের দেড়শতাধিক রেস্টুরেন্টে ইলিশ পান্তাসহ নানা আয়োজন থাকবে পর্যটকদের জন্য।

রাখাইন গবেষক অধ্যাপক ক্যাথি অং জানান, রাখাইন সম্প্রদায় রাখাইন ও সখি বিদায় ও স্বাগত জানাতে ১৩ এপ্রিল থেকে ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত ৭ দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে। এ সময় জলকেলি উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। রাখাইন সম্প্রদায়ের জলকেলি উৎসব এর জন্য ইতোমধ্যে শহরে ও জেলার বিভিন্নস্থানে প্যান্ডেল তৈরি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। এই জলকেলি উৎসব দেখতে এসব প্যান্ডেলে পর্যটকদের আগমন ঘটবে বলেও জানান এ রাখাইন গবেষক।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন জানান, বাংলা নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে জেলা প্রশাসন নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। ব্যতিক্রমী মঙ্গল শুভযাত্রা সমুদ্র সৈকত ঘুরে আগত পর্যটকদের আনন্দ দেবে। সৈকতে ঘুড়ি উৎসব ছাড়াও পহেলা বৈশাখ সৈকতের উন্মুক্ত মঞ্চে থাকবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। কক্সবাজার শহীদ দৌলত ময়দানে পিঠা উৎসব সহ আরো বেশ কিছু আয়োজন এর কথা ও জানান জেলা প্রশাসক। সে সাথে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন মঙ্গল শুভযাত্রা সহ নানা আয়োজন করবে বলেও জানান জেলা প্রশাসক।

বাংলা বর্ষবরণ আর টানা ছুটিতে কক্সবাজারে আগত পর্যটকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে টুরিস্ট পুলিশের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ফখরুল ইসলাম।