চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ফের রেপো রেট কমালো ভারতের রিজার্ভ ব্যাংক

আবারো ভারতের রিজার্ভ ব্যাংক রেপো রেট কমিয়েছে। ৬ শতাংশ থেকে ২৫ বেসিস পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ কমিয়ে রেপো রিট নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

দেশের প্রবৃদ্ধি বাড়াতে আর্থিক খাতে গতি আনতে এই সিদ্বান্ত নেয় রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া (আরবিআই)।

এনডিটিভির খবরে এই তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংক (আরবিআই) শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ রেপো রেট কমিয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নরের নেতৃত্বাধীন আর্থিক নীতিমালার ৬ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি বৃহস্পতিবার এই সিদ্ধান্ত নেয়। তিন দিনব্যাপী বৈঠকশেষে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

চলতি বছরে এই নিয়ে তিনবার রেপো রেট কমানো হয়। ২০১০ সালের সেপ্টেম্বরের পর এটিই সবচেয়ে কম রেপো হার।

বিজ্ঞাপন

কেন্দ্রীয় ব্যাংক বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে স্বল্প মেয়াদে যে সুদ হারে ঋণ দিয়ে থাকে তাকে রেপো রেট বলা হয়।

আরবিআই যে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে তা আর্থিক খাতের বিশেষজ্ঞরাও ধারণা করেছিলো। দেশটির ৬৬ শতাংশ বিশেষজ্ঞ এই ধারণা করেছিল। যাদেরকে নিয়ে একটি সমীক্ষা করেছিল সংবাদ সংস্থা রয়টার্স। তাদের সিংহভাগই রেপো রেট কমার বিষয়ে বলেছিল।

রিজার্ভ ব্যাংক রেপো রেট কমিয়েছে ২৫ বেসিস পয়েন্ট বা শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ। এতদিন রেপো রেট ছিল ৬ শতাংশ। এখন কমে তা হয়েছে ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

এর ফলে গ্রাহকরা বাণিজ্যিক ব্যাংক থেকে গাড়ি ক্রয়, বাড়ি নির্মাণসহ অন্যান্য খাতে কম সুদে ঋণ পাবেন। তবে এতে আমানতকারীদের জমাকৃত অর্থের মুনাফা কমে যেতে পারে। মূলত প্রবৃদ্ধি বাড়াতেই রেপো রেট কমায় আরবিআই।

গত অর্থবছরের মার্চ কোয়ার্টারে ভারতের জিডিপি ছিল ৫ দশমিক ৮ শতাংশ। আর এভাবেই সবচেয়ে দ্রুত গতিতে বাড়তে থাকা দেশের তকমা হারিয়ে ফেলে ভারত। ভারতকে পরাজিত করে চীনের আর্থিক প্রবৃদ্ধির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৪ শতাংশ। এ ধরনের আর্থিক পরিস্থিতিতেই রেপো রেট কমিয়ে দিল দেশটির শীর্ষ ব্যাংক।

আরবিআই আর্থিক নীতি বিবরণীতে উল্লেখ করেছিল, ২০১৯-২০ অর্থ বছরে তাদের প্রবৃদ্ধি ৭ দশমিক ২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৭ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছিল। ভোক্তা মূল্য স্ফীতি অর্থ বছরের প্রথম অর্ধেকে সমানভাবে ভারসাম্য পূর্ণ ঝুঁকি নিয়ে ৩ থেকে ৩ দশমিক ১ শতাংশের মধ্যে স্থির রাখা হয়েছে।