চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর গুলিতে দু’পা হারানো ফিলিস্তিনিসহ বহু হতাহত

জেরুজালেম ইস্যুতে ফিলিস্তিনি জনগোষ্ঠীর টানা বিক্ষোভে ইসরায়েলি বাহিনীর প্রতিনিয়ত সহিংস হামলায় নিহতের সংখ্যা বাড়ছেই। শুক্রবার গাজা, পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে চলা বিক্ষোভে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহতের এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪-এ।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় গণমাধ্যম সূত্রে আল-জাজিরা জানিয়েছে, মুহাম্মাদ আমিন আকেল আল-আদম নামের ১৮ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনি শুক্রবার পশ্চিম তীরবর্তী শহর রামাল্লায় বিক্ষোভ মিছিলে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর চালানো গুলিতে মারা যান। ইসরায়েলের ভাষ্য, আদম ইসরায়েলি বাহিনীর সদস্যদের আক্রমণের চেষ্টা করেছিলেন।

বিজ্ঞাপন

এর কয়েক ঘণ্টা আগে পশ্চিম তীরে একই অবস্থায় গুলিতে নিহত হয়েছে আরেক ফিলিস্তিনি। তার আগে গাজা উপকূলে সীমান্তে বিক্ষোভ চলাকালে ইসরায়েলি বাহিনী হামলা চালালে দুই ফিলিস্তিনি গুলিতে নিহত হয়।

নিহত চারজনের মধ্যে একজন ইব্রাহিম আবু থুরাইয়া। ২৯ বছর বয়সী এই ফিলিস্তিনি অতীতে ইসরায়েলি বাহিনীর বোমা হামলায় দুই পা হারিয়েছিলেন। ফিলিস্তিনিরা সামাজিক মাধ্যমে আবু থুরাইয়ার প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছে। তারা থুরাইয়ার একটি ভিডিও-ও সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করছে, যেখানে তিনি জেরুজালেমকে ট্রাম্পের ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতিদানের প্রতিবাদ করতে ফিলিস্তিনিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

ফিলিস্তিনি বিক্ষোভ-ফিলিস্তিন-জেরুজালেম-ইসরায়েল
নিহত আবু থুরাইয়া

পুরো বিশ্বের, এমনকি নিজ দেশের জনগণের প্রতিবাদ না শুনে গত ৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে ঘোষণা দেন। ট্রাম্পের এ ঘোষণাকে প্রত্যাখান করে গত সপ্তাহে পাল্টা পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেয় ওআইসি। ট্রাম্পের ঘোষণার পর থেকেই ওই অঞ্চলে চলছে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ এবং তা ঠেকাতে ইসরায়েলি বাহিনীর পাল্টা হামলা।