চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ফিলিপিন্সের স্কুলে ‘জিম্মি নাটকের’ অবসান

ফিলিপিন্সের দক্ষিণাঞ্চলের মিন্দানাও দ্বীপের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সশস্ত্র হামলা চালিয়ে কথিত ইসলামিক স্টেট (আইএস)-পন্থি একদল জঙ্গি বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে জিম্মি করে রাখার পর তাদের কোন ক্ষতি না করে ফেরত চলে গেছে।

দেশটির সেনাবাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল রেস্টিটুটো পাদিলা জানিয়েছেন, জঙ্গি দলটি যেভাবে স্কুলে হামলা চালিয়ে ভেতরে থাকা লোকজনকে জিম্মি করেছিল, ঠিক সেভাবেই আবার ফেরত চলে গেছে।

বিজ্ঞাপন

সাংবাদিকদের তিনি জানিয়েছেন, ‘তারা (জঙ্গিরা) এখন আর সেখানে নেই, ফেরত চলে গেছে। পুরো স্কুল এলাকা এখন নিরাপদ।’

অবশ্য ‘পাঁচ ব্যক্তিকে আটক করে জঙ্গিরা অন্য কোথাও নিয়ে গিয়ে জিম্মি করে রেখেছে’- এমন একটি তথ্য যাচাইয়ের চেষ্টা চলছে বলেও জানিয়েছেন সেনাবাহিনীর এই মুখপাত্র।

এর আগে পুলিশ সূত্রে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, স্থানীয় সময় বুধবার ভোরে প্রায় তিনশ’ সদস্যের একটি সশস্ত্র জঙ্গি দল নর্থ কোটাবাটো প্রদেশের পিগকাওয়াইয়ান শহরে অবস্থিত একটি স্কুলে হঠাৎ করে ঢুকে পড়ে। এসময় তারা বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে জিম্মি করে ফেলে।

হামলাকারীদের মধ্যে স্থানীয় বিদ্রোহী জঙ্গি দল বাংসামোরো ইসলামিক ফ্রিডম ফাইটার্স (বিআইএফএফ)-এর বহু সদস্যও ছিল।

বিজ্ঞাপন

বিআইএফএফের সদস্যদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বন্দুকযুদ্ধও হয়েছে বলে জানান পিগকাওয়াইয়ান পুলিশ প্রধান রিয়ালান মামোন।

স্থানীয় একটি রেডিও স্টেশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ওই সময় তিনি বলেন, জঙ্গি হামলা এবং জিম্মির ব্যাপারটা নিশ্চিত করা গেলেও স্কুলের ভেতর আটকা পড়াদের সংখ্যা এবং পরিচয় সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

অন্যদিকে পিগকাওয়াইয়ান শহরের মেয়র এলিসিও গারসেসাও বলেন, হামলায় সম্ভাব্য হতাহতের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করছেন তিনি।

ওই মিন্দানাও দ্বীপে গত প্রায় পাঁচ সপ্তাহ ধরেই সরকারি বাহিনীর সঙ্গে জঙ্গিদের হামলা-পাল্টা হামলা চলছে। পিগকাওয়াইয়ান মারাউই সিটি থেকে ১৯০ কিলোমিটার দক্ষিণে মারাউইতে বিআইএফএফসহ আইএসপন্থি বেশ কয়েকটা জঙ্গি দল গত ২৩ মে থেকে সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

মঙ্গলবার মারাউই সিটিতে নতুন করে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ফিলিপাইন সরকারের বিমান হামলা ও স্থল অভিযান চালানো হয়।

সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র জানান, আসন্ন ঈদের সপ্তাহের আগে পুরো এলাকা জঙ্গিমুক্ত করা ছিল অভিযানের উদ্দেশ্য।