চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

প্রবাস জীবন নিয়ে কানাডার কমিউনিটি রেডিও’র বিশেষ আলোচনা

কানাডার সাস্কাতুনের কমিউনিটি রেডিওর “বাংলার গান ও কথা” অনুষ্ঠানে ইউনিভার্সিটি অব সাস্কাচুয়ানের বাংলাদেশি ও অভিবাসী  ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে একটি আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে ছাত্রজীবনে নিজেদের জ্ঞানের পরিধি বাড়ানোর পাশাপাশি নতুন পরিবেশ এবং সংস্কৃতির সাথে অভিযোজন ক্ষমতা বাড়াতে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্তা কতটা জরুরী সে বিষয়গুলো স্থান পায়।

বিজ্ঞাপন

আলোচনায় বক্তারা বলেন, বিশ্বায়নের এ যুগে বিদেশে উচ্চশিক্ষা অর্জনের জন্য প্রতি বছর অসংখ্য শিক্ষার্থী বাংলাদেশ থেকে বিদেশে পাড়ি জমায়। এই বিশাল পৃথিবীর অসীম জ্ঞান ভান্ডারকে চোখ মেলে দেখতে-জানতে, নিজেকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়তে  এবং পাশাপাশি প্রতিযোগীতামূলক বিশ্ব শ্রমবাজারের চাহিদানুযায়ী উপযুক্ত, দক্ষ শ্রমশক্তি  হিসেবে নিজেকে তৈরি করতে, একজন শিক্ষার্থী যখন বিদেশে শিক্ষা গ্রহণ করতে আসে, তখন তাকে বহুমুখী সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

বিজ্ঞাপন

যেমন  পরিবার থেকে দূরে থাকার কারণে লাইফ স্কিল গুলো শিখে নিতে হয় ঝটপট  স্বাবলম্বী হবার জন্য, পার্টটাইম চাকুরী খুঁজে নিতে হয় পড়াশুনার অর্থ সংগ্রহের জন্য, আর নতুন আবহাওয়া, সংস্কৃতির সাথে খাপ খাওয়ানোর জন্য, নতুন বন্ধু  তৈরীর জন্যও সামাজিক দক্ষতাগুলো তৈরী করতে নিতে  হয় চটজলদি।

অনেক সময় ভিন্ন সংস্কৃতিতে নিজেকে  খাপ খাওয়াতে না পারলে শিক্ষার্থীদের জীবনের লক্ষ্য থেকে স্খলনেরও সম্ভাবনাও থাকে। আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা বেশিরভাগই পুঁথিগত ডিগ্রী  অর্জনের বাইরে এবং চাকুরী পাবার আকাঙ্ক্ষার  পেছনে ছুটে বেড়ানো  ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে ক্যাম্পাসের  অপ্রাতিষ্ঠানিক উৎসগুলো থেকে জ্ঞান আহরণে উৎসাহ দেখায় না । বেশিরভাগই  শুধুমাত্র বাংলাদেশি ছাত্র বা কমিউনিটির সদস্যদের সাথে মেলামেশার সংস্কৃতি তৈরী করে নেবার কারণে আন্তঃসাংস্কৃতিক এবং প্রবাস  জীবনে মানিয়ে নেবার  নানা প্রয়োজনীয় শিক্ষা থেকে নিজের অজান্তেই দূরে সরে যায়। এতে করে মূলধারার হোস্ট কমিউনিটির সাথে তাদের  একধরনের বিচ্ছিন্নতা তৈরী হয় যা সৃষ্টি করে নানা ধরনের সামাজিক সমস্যা যা এক পর্যায়ে  মানসিক স্বাস্থ্যকেও স্পর্শ করে।

আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন অদিতি দাসগুপ্তা, আয়েশা খান মাসাবা, আশা রায়, আব্দুল হালিম, ফাহমিদা খন্দকার টুম্পা। এছাড়াও বিশেষভাবে সহযোগিতা করেছেন সওগত, কুমকুম আজাদ, রঞ্জন দত্ত এবং অনুষ্ঠানটি পরিচালনায় ছিলেন জেবুননেসা চপলা।
অনলাইনেও রয়েছে কানাডার বাইরে অনুষ্ঠানটি শোনার সুযোগ। ‘বাংলার গান ও কথা’ শুনতে পাবেন প্রতি রবিবার সাস্কাটুন সময় সকাল ১০টায়, বাংলাদেশ সময় রবিবার রাত ১০টায় , কলকাতা সময় রাত ৯.৩০ টায় , টরন্টো , অটোআ , নিউ ইওর্ক এবং মন্ট্রিয়েল সময় সকাল ১২ টায়, অস্ট্রেলিয়া সময় ভোর ২.৩০  আর লন্ডন সময় দুপুর ৩.০০ টায় শুনতে পাবেন CFCR ৯০.৫ এফ এম এ অথবা সরাসরি অনলাইনেও শুনতে পারেন নিচের লিঙ্কটিতে ক্লিক করে –

http://www.cfcr.ca/onair পৃথিবীর যেকোনো প্রান্ত থেকে।