চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের পরই কেবল নর্থ কোরিয়ার মুক্তি: ম্যাটিস

মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম ম্যাটিস বলেছেন, পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের স্পষ্ট ও অপরিবর্তনীয় পদক্ষেপ নেয়ার পরই কেবল নর্থ কোরিয়া এর বিরুদ্ধে গৃহীত সব ব্যবস্থা থেকে মুক্তি পাবে।

নর্থ কোরীয় নেতা কিম জং উনের সঙ্গে ১২ জুন সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিতব্য বৈঠক বাতিলের ৮ দিনের মধ্যেই সিদ্ধান্ত ফিরিয়ে নেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তখন থেকে এ পর্যন্ত বৈঠক সফল করতে যুক্তরাষ্ট্রের তৎপরতা লক্ষ্যণীয়।

বিজ্ঞাপন

তাই নর্থ কোরিয়ার সঙ্গে পারমাণবিক অস্ত্র ইস্যুতে সমঝোতায় আসতে যুক্তরাষ্ট্র খুব তাড়াহুড়ো করছে – এমন আশঙ্কার জবাবে ম্যাটিস এ কথা বলেন। স্থানীয় সময় রোববার সিঙ্গাপুরে শাংরি-লা সংলাপের ফাঁকে জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইতসুনোরি ওনোদেরা এবং সাউথ কোরিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সং ইয়ং মু’র সঙ্গে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক শুরুর আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

ম্যাটিস বলেন, ‘আমরা খুব বেশি হলে সমঝোতায় পৌঁছানোর পথে কিছু বাধা-বিপত্তির আশা করতে পারি। আমরা নর্থ কোরিয়া ইস্যুতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে গৃহীত সিদ্ধান্তগুলোর প্রয়োগ চালিয়ে যাবো। নর্থ কোরিয়া শুধু তখনই এসব থেকে রেহাই পাবে যখন দেশটি পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের যাচাইযোগ্য এবং অপরিবর্তনীয় পদক্ষেপ নেয়া শুরু করবে।’

এর আগে গত বুধবার নিউইয়র্কে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর সঙ্গে দেখা করেন নর্থ কোরীয় নেতা কিম জং উনের ডান হাত জেনারেল কিম ইয়ং চল। আসন্ন কিম-ট্রাম্প সম্ভাব্য বৈঠক নিয়ে আলোচনা করতেই গত প্রায় ২০ বছরে প্রথমবারের মতো নর্থের এত সিনিয়র একজন কর্মকর্তার যুক্তরাষ্ট্রে এই সফর।

বৈঠকের আগেই অবশ্য যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান তুলে ধরেছিলেন আরেক টুইটবার্তায়। বলেন: ‘চেয়ারম্যান কিমের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সম্ভাব্য বৈঠক নিয়ে আলোচনা করতে নিউইয়র্কে কিম ইয়ং চলের সঙ্গে দেখা করার অপেক্ষায় আছি। আমরা (মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগ) কোরীয় উপদ্বীপকে পূর্ণাঙ্গ, যাচাইযোগ্য এবং অপরিবর্তনীয়ভাবে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।’

২০০৬ সালে প্রথম পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষার পর থেকে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ ও যুক্তরাষ্ট্রের পর থেকে বছরের পর বছর ধরে নর্থ কোরিয়া নানা রকম অবরোধ ও নিষেধাজ্ঞার মধ্যে রয়েছে।