চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পথশিশুদের নিয়ে নতুন করে ভাবতে শেখাবে ‘পাঠশালা’

‘পাঠশালা’ দেখার পর পথশিশুদের নিয়ে নতুন করে ভাববে দর্শক। স্বচ্ছ একটি বোধ তৈরি হবে মানুষের। এমনটাই মনে করেন সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘পাঠশালা’ ছবির নির্মাতা আসিফ ইসলাম। তিনি মনে করেন, ‘পাঠশালা’ দেখার পর যে কারো বোধকে নাড়িয়ে দিবে এই ছবি।

গেল শুক্রবার(৩০ নভেম্বর) প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেল বহুল প্রতীক্ষিত শিশুতোষ সিনেমা ‘পাঠশালা’। ছবিটি পরিচালনা করেছেন দুই নির্মাতা আসিফ ইসলাম ও ফয়সাল রদ্দি। রাজধানীর বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্স ও যমুনা ব্লকবাস্টারে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। মুক্তির পর কেমন যাচ্ছে ছবিটি? দর্শকের রিভিউ কেমন? চ্যানেল আই অনলাইনকে এসব প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন নির্মাতা আসিফ।

হাউজফুল না গেলেও ‘পাঠশালা’ ছবিটি নিয়ে দর্শকের উচ্ছ্বাসে মুগ্ধ নির্মাতাদ্বয়। আসিফ জানালেন, হাউজফুল যাচ্ছে না সত্য, কিন্তু ছবিটি নিয়ে দর্শকের আগ্রহ দেখার মতো। বিশেষ করে ছবিটি দেখার পর এখন পর্যন্ত কেউ নেগেটিভ মন্তব্য করেননি। গত চারদিনই বেশ ভালো দর্শক আমরা পেয়েছি।

ছবিটি মূলত শিশুতোষ। নির্মাতার আশা, ৭ ডিসেম্বরের মধ্যে রাজধানীর স্কুলগুলোতে বার্ষিক পরীক্ষা শেষ হবে, এরপর হয়তো ‘পাঠশালা’ দেখতে সিনেপ্লেক্সে ভালো চাপ সৃষ্টি হবে। তবে ‘পাঠশালা’ এমন একটি সিনেমা যা সব শ্রেণির দর্শকের ভালো লাগবে বলেই আমাদের বিশ্বাস।

আগামী সপ্তাহে সিনেমা হল বাড়ছে কিনা জানতে চাইলে আসিফ বলেন, এই সপ্তাহে ‘দহন’ সিনেমাটি বেশ আলোচনায়। সবার আগ্রহ দহনের দিকে। তাই রাজধানী বা ঢাকার বাইরের সিঙ্গেল হলগুলো ‘পাঠশালা’র মুক্তি সহজ হবে না। তবে ‘দহন’ নিয়ে চাপ কমলে পরে হয়তো আমরা সিঙ্গেল হলগুলোতে যাবো। তবে আগামী সপ্তাহে চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিনে ছবিটি মুক্তি দিতে কথা হচ্ছে, এখনো তা চূড়ান্ত নয়। পাঠশালা নিয়ে আগ্রহ দেখিয়েছে বলাকা ও শ্যামলী সিনেমা হল।

প্রপার মার্কেটিংয়ের কারণে প্রচুর মানুষের কাছে ছবিটির খবর পৌঁছে দেয়া যায়নি বলে মনে করেন নির্মাতা। এ বিষয়ে তিনি বলেন, এখনকার ছবির মার্কেটিংয়ে আলাদা একটা বাজেট লাগে যা আমাদের সাধ্য নেই। এজন্য প্রচুর মানুষের কাছে ‘পাঠশালা’র খবর পৌঁছানো যায়নি। তবে আমরা ছোট পরিসরেই নিজেদের সাধ্যের মধ্যে থেকে চেষ্টা করে যাচ্ছি। এক্ষেত্রে শিশুদের কাছে ‘পাঠশালা’র খবর পৌঁছাতে বিশেষ ভাবে সহায়তা করছে ‘দূরন্ত টেলিভিশন’। সবার জায়গা থেকে একটু হেল্প করলে হয়তো ছবিটি আরো কিছু মানুষের কাছে পৌঁছাবে।

‘পাঠশালা’ যারা দেখছেন, তারা নিজেদের অজান্তেই আরেকটি দুর্দান্ত কাজ করছেন বলে মনে করছেন নির্মাতা। এর ব্যাখ্যা দিয়ে আসিফ বলেন, আমরা কিন্তু ছবি মুক্তির আগেই কথা দিয়েছিলাম টিকেট থেকে যা পাবো তার দশ শতাংশ চলে যাবে মাস্তুল ফাউন্ডেশনে। যারা পথশিশুদের নিয়ে একটি আধুনিক স্কুল নির্মাণ করবেন। তাই দর্শক হয়তো টিকেট কেটে ‘পাঠশালা’ দেখছেন, আর সেখান থেকে একটা অংশ চলে যাচ্ছে পথশিশুদের স্কুল নির্মাণে।

যৌথভাবে ‘পাঠশালা’ পরিচালনা করেন আসিফ ইসলাম ও ফয়সাল রদ্দি

ভারত, জার্মানি ও কানাডার বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শনের পর এবার বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে ‘পাঠশালা’। যার ট্রেলার মুক্তি দিয়েই সবার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছিলো ছবিটি। দশ বছরের এক মেধাবী পথশিশু মানিকের জীবন জয়ের অদম্য গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ছবিটি।