চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নেইমারকে জাতীয় দলে চায় না ব্রাজিলিয়ানরাই

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ। তিন ম্যাচ থেকে আট ম্যাচ নিষেধাজ্ঞার খড়গ ঝুলে আছে লিগ ওয়ানেও। দিনকে দিন নেতিবাচক সংবাদে শিরোনাম হওয়া নেইমারকে নিয়ে নতুন করে ভাবার সময় এসেছে বলে একাধিক ব্রাজিলিয়ান সংবাদমাধ্যমের খবর। দেশটির কয়েকজন প্রভাবশালী সাংবাদিকের মত, বেয়ারা ফরোয়ার্ডকে পথে আনতে জাতীয় দল থেকেও বাদ দেয়া প্রয়োজন!

বিজ্ঞাপন

রেনেঁর বিপক্ষে লিগ কাপ ফাইনালের পর নেইমারের দর্শককে ঘুষিকাণ্ডের খবর বেশ ফলাও করে ছেপেছে ব্রাজিলিয়ান সংবাদ মাধ্যমগুলো। সেই ঘটনা নিয়ে এখন তদন্ত চলছে। দোষী সাব্যস্ত হলে তিন থেকে আট ম্যাচ নিষিদ্ধ হতে পারেন ২২২ মিলিয়ন ইউরো দামি পিএসজি ফরোয়ার্ড। এরআগে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রেফারিদের গালি দিয়ে উয়েফার কাছ থেকেও নিষেধাজ্ঞা পেয়েছেন তিন ম্যাচের।

কেন এত নেতিবাচক খবরের শিরোনাম তিনি? এতসব শাস্তি কী তবে গায়েই মাখছেন না নেইমার?

বিজ্ঞাপন

উত্তরটা দিয়েছেন জনপ্রিয় ব্রাজিলিয়ান ধারাভাষ্যকার আন্দ্রেয়া রিজাক, ‘আমরা কখনোই শুনিনি নেইমার নিজের মুখে স্বীকার করেছেন যে তিনি ভুল করেছেন। সমস্যাটা পিএসজির তরুণ খেলোয়াড়দের হতে পারে। অথবা হতে পারে নেইমার এমনসব কাণ্ডে শাস্তি পাচ্ছে যেটা তার পাওয়া উচিত ছিল না।’

আন্দ্রেয়া রিজাকের মত কূটনীতির ধার ধারেনি ব্রাজিলের ও’গ্লোবো পত্রিকার সম্পাদক কার্লোস এডুয়ার্ডো মানসুর। তার মতে নেইমারের মতো একজন খেলোয়াড়ের উচিত ছিল আচরণে লাগাম দেয়াঅ

‘একজন খেলোয়াড়ের উচিত অন্যের টিটকারির দিকে নজর না দেয়া। নেইমারের মতো একজন ফুটবলারের জানা উচিত যে, তিনি জাতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করছেন। তার দিকে কোটি কোটি চোখ তাকিয়ে। যেভাবে একজন দর্শকের সঙ্গে আচরণ করেছেন নেইমার, সেটা মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়। ফুটবলে এর কোনো জায়গা নেই।’

মৌসুমের শুরুতে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়ের গায়ে থুতু ছিটানোর দায়ে জুভেন্টাস খেলোয়াড় ডগলাস কস্তাকে জাতীয় দল থেকে দুই ম্যাচ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিলেন ব্রাজিল কোচ টিটে। নেইমারকেও এরকম শাস্তি দেয়া হোক বলে দাবি জানিয়েছেন টিভি গ্লোবোর প্রতিবেদক লিভিয়া লারাঞ্জেইরা। তার দাবির প্রেক্ষাপটে আরেক সাংবাদিক মারিলিয়া রুইজ ব্রাজিল ফেডারেশনের এক কর্মকর্তার বরাতে জানিয়েছেন, নেইমারকে কোনো শাস্তি দেয়া যায় কিনা সে বিষয়ে ভাবছেন কোচ টিটে!