চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নারীর শরীর নিয়ে মন্তব্য করে বিপাকে লেখক

৫০ বা তার বেশি বয়সী কোনো নারীর প্রেমে পড়তে পারবেন না মন্তব্য করে বেশ সমালোচনার মুখে পড়েছেন এক ফরাসি লেখক।  তার নিজেরও বয়স ৫০।

বিজ্ঞাপন

মেরি ক্ল্যারি ম্যাগাজিনকে লেখক ইয়ান মইক্স বলেন, এই বয়সী নারীরা বেশি বয়স্ক। আমি কমবয়সী নারীর শরীর পছন্দ করি। আর ২৫ বছর বয়সী নারীর শরীরতো অসাধারণ। ৫০ বছর বয়সী নারীর শরীর মোটেও অসাধারণ নয়।

ওই লেখকের এমন মন্তব্যের পরই সামাজিক যোগাযোগ জুড়ে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ শুরু হয়ে যায়।

ফরাসি কমেডিয়ান মেরিনা ফয়িস তার টুইটারে মজা করে লিখেন, খুব শিগগিরই ৪৯ বছর হতে যাচ্ছে তার। মাত্র এক বছর ১৪ দিন সময় হাতে আছে এই লেখকের (ইয়ান মইক্স) সঙ্গে শোয়ার জন্য।

আরেকজন টুইটারে তাকে উপহাস করে লিখেছেন, পঞ্চাশের বেশি বয়সী নারীরা শ্বাস নিচ্ছে সেটাই একটা ত্রাণ।

বিজ্ঞাপন

আরেকজনের প্রশ্ন, আপনার কাছে একইভাবে ৫০ বছরের কম বয়সীরাও কি অদৃশ্য হয়ে যেতে পারে?

একইভাবে ৫০ বছরের বেশি বয়সী কিছু নারী প্রতিবাদস্বরূপ, নিজেদের শরীর প্রদর্শন করে ছবি পোস্ট করেছেন। কেউ কেউ হলিউডের পঞ্চাশোর্ধ নারী অভিনেত্রী যেমন হ্যালি বেরি, জেরিফার অ্যানিস্টনের ছবি পোস্ট করছেন তার মন্তব্য ভুল প্রমাণিত করতে।

মইক্স এর আগেও নিজের মন্তব্যের জেরে সমালোচনার শিকার হয়েছেন। তিনি একই সঙ্গে প্রেজেন্টার, ডিরেক্টর এবং পুরস্কারজয়ী লেখক।

মেরি ক্ল্যারিকে দেওয়া তার সেই ইন্টারভিউ আরো বেশি সমালোচিত হয়েছে এশিয়ান নারীদের ডেট করার বিষয়ে মন্তব্য করে। যাদের তিনি বিশেষভাবে আলাদা করেছেন কোরিয়ান, চাইনিজ ও জাপানিজ হিসেবে।

তিনি বলেন, যার সঙ্গে বাইরে যাবে, তার জন্য বিষয়টা খুবই দুঃখজনক হবে। কিন্তু আমার জন্য এশিয়ান টাইপটা খুবই ধনী, বড় এবং অসীম মনে হয়।

তবে নারীর প্রতি এই ধরনের মন্তব্য এবং আগ্রহের জন্য নিজেকে মোটেও দায়ী মনে করেন না তিনি।

ব্যাখ্যা দিয়ে ইয়ান মইক্স বলেন, যাকে পছন্দ করি করি, না করলে করিনা। সেটা নিয়ে আদালতে বলতে যাবো না। ৫০ বছর বয়সীদের আমার মতো যে সারাদিন লিখে ও পড়ে তার সাথে থাকার চেয়ে আরো অনেক কিছু করার আছে। আমার সঙ্গে থাকা কিন্তু সহজ নয়।