চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নারীর জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশ ভারত

বিশ্বে নারীর জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশ ভারত। মঙ্গলবার প্রকাশিত লন্ডনভিত্তিক সেবামূলক প্রতিষ্ঠান থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশনের এক জরিপের ফলাফলে এ তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

যুদ্ধ বিধ্বস্ত আফগানিস্তান ও সিরিয়ার চেয়েও ভারতে নারীরা বেশি ঝুঁকিতে থাকে বলে ওই গবেষণায় দেখা গেছে। এই দেশ দু’টি ভারতের পর যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হিসেবে তালিকায় রয়েছে।

১৯৯১ সাল থেকে জঙ্গি ও বিদ্রোহীদের হামলায় বিপর্যস্ত সোমালিয়াকেও পেছনে ফেলে দিয়েছে ভারত। নারীদের জন্য বিপজ্জনক দেশের তালিকায় সোমালিয়া রয়েছে চার নম্বরে। আর ভয়াবহ মানবিক সংকটের শিকার ইয়েমেন হয়েছে অষ্টম।

নারীদের জটিলতা বিষয়ক ৫৪৮ জন বৈশ্বিক বিশেষজ্ঞের ওপর জরিপটি চালানো হয়েছিল। এদের মধ্যে ৪৩ জনই ভারতীয়।নারীর জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশ ভারত

এই বিশেষজ্ঞদের স্বাস্থ্যসেবা, অার্থিক উৎসের সুবিধা পাবার সুযোগ ও অর্থনৈতিক বৈষম্য, গতানুগতিক কর্মকাণ্ড, যৌন সহিংসতা, অন্যান্য ধরনের সহিংসতা এবং মানব পাচার – এই ৬ টি ক্ষেত্রে নারীদের যেসব ঝুঁকির মুখে পড়তে হয় সেগুলো নিয়ে প্রশ্ন করা হয়।

এই প্রশ্নগুলোর জবাবে পাওয়া তথ্য থেকে দেখা গেছে, সার্বিকভাবেই অন্যান্য দেশের তুলনায় ভারতের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। বিশেষ করে মানব পাচার, যৌন সহিংসতার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় ও গোষ্ঠীগত প্রথার ক্ষেত্রে নারীর ঝুঁকি প্রকট।

২০১১ সালে থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশন পরিচালিত একই জরিপে ভারতের অবস্থান ছিল চতুর্থ। ওই সময় প্রতিবেশী পাকিস্তানের চেয়ে তার অবস্থা ভালো ছিল। আর এবার পাকিস্তান চলে এসেছে ষষ্ঠ অবস্থানে। যার অর্থ, বর্তমানে পাকিস্তানে নারীরা ভারতের চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ।

নারীর জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশ ভারত
২০১১ সালের জরিপে নারীর জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বিশ্বের প্রথম ৫টি দেশ

এবারের জরিপে ভারতের এত খারাপ অবস্থানের প্রধান কারণ নারীর বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের ব্যাপকতা। পরিবারের সদস্য দ্বারা ধর্ষণ, অপরিচিত ব্যক্তি দ্বারা ধর্ষণ, যৌন হয়রানি এবং ধর্ষণ মামলায় ন্যায়বিচারের অভাব এক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে।

FacebookTwitterInstagramPinterestLinkedInGoogle+YoutubeRedditDribbbleBehanceGithubCodePenEmail