চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নর্থ কোরিয়াকে আলোচনায় ফেরাতে ট্রাম্প-মুন ফোনালাপ

নর্থ কোরিয়াকে আলোচনার টেবিলে ফিরিয়ে আনতে ফোনালাপ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও সাউথ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায় ইন।

আগামী ১২ জুন নর্থ কোরীয় নেতা কিম জং উন ও ট্রাম্পের মধ্যে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠেয় বৈঠকটি যাতে বাতিল হয়ে না যায় সেজন্য ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার কথা বলেছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

যতই দিন যাচ্ছে, সিঙ্গাপুরের বৈঠকটি নিয়ে তত বেশি অনিশ্চয়তা দেখা দিচ্ছে। শেষ পর্যন্ত এই বৈঠক বাতিল হয়ে গেলে তা ট্রাম্পের জন্য রাজনৈতিকভাবে এক বিরাট অস্বস্তিকর অবস্থা তৈরি করবে।

তাই এমন কিছু যেন না ঘটে, সেজন্য বন্ধু রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে তিনি পরামর্শ করছেন, চাপাচাপি করছেন তাকে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করার জন্য।

বিজ্ঞাপন

এর আগে গত ১৬ মে কিম জং উন হুঁশিয়ার করে বলেন, পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে ট্রাম্প যদি নর্থের ওপর চাপ সৃষ্টি করে তাহলে আসন্ন বৈঠকে দেশটির নেতা কিম জং উন আদৌ বসবেন কিনা তা পুনর্বিবেচনা করা হবে। নর্থের অভিযোগ, সাউথ কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ মহড়া উত্তেজনার সৃষ্টি করছে।

নর্থ কোরিয়ার হুমকির পরপরই যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র বিভাগ জানায়, এরপরও তারা জুনে ট্রাম্প-কিম বৈঠকের জন্য কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র সারাহ স্যান্ডার্স সংবাদমাধ্যমকে জানান, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আলোচনার জন্য এখনো তৈরি

কিন্তু গত বৃহস্পতিবার আবার ডোনাল্ড ট্রাম্প হুমকি দিয়ে বলেন, নর্থ কোরিয়া পরমাণু অস্ত্র নিষ্ক্রিয় না করলে লিবিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট মুয়াম্মার গাদ্দাফির মতো অবস্থা হবে কিমের। পরমাণু অস্ত্র নিষ্ক্রিয় করলে নর্থ কোরিয়ার ক্ষমতায় কিম জং উনই থাকবেন বলেও প্রস্তাব দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

এরপর আসন্ন বৈঠক নিয়ে আরও বেশি জটিলতা দেখা দেয়।

এ পরিস্থিতিতে দুই পক্ষের মধ্যে ব্যবধান কমিয়ে আনতে মধ্যস্থতায় আগ্রহ প্রকাশ করেছে সাউথ কোরিয়া। রোববার টেলিফোনে ট্রাম্প ও মুন এ বিষয়ে প্রায় ২০ মিনিট কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে সাউথ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের কার্যালয়। যদিও এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলা হয়নি।