চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নরসিংদীতে দ্বিতীয় আস্তানা থেকে ২ নারী জঙ্গির আত্মসমর্পণ

‘অভিযানে পাওয়া ৪ জঙ্গির মধ্যে ২ জনই মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী’

নরসিংদীর মাধবদীর দ্বিতীয় জঙ্গি আস্তানা থেকে ২ নারী জঙ্গি পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট-সিটিটিসি’র কাছে আত্মসমর্পণ করেছে।

বিজ্ঞাপন

মাধবদীর শেখেরচরে মঙ্গলবার জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের পর পৌর এলাকার গদাইর চরে সন্দেহজনক দ্বিতীয় বাড়িতে আজ আবারও অভিযান শুরুর কথা ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর। মঙ্গলবার রাত থেকেই বাড়িটি ঘিরে রেখেছিল পুলিশ। ওই বাড়িতে দু’জন অবস্থান করছে বলেও পুলিশ জানিয়েছিল।

ঘিরে রাখা অবস্থায় বাড়িটিতে অবস্থানরতদের বারবার আত্মসমর্পণের আহ্বান জানাতে থাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এর মাঝেই এক পর্যায়ে বুধবার বেলা আড়াইটার পর ওই দুই নারীকে বাড়িটি থেকে বেরিয়ে আসতে দেখা যায়।

আত্মসমর্পণকারী ওই দুই নারীকে আটকের পর সাংবাদিকদের কাছে ব্রিফিংয়ে সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন: এ পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুসারে, ওই দু’জনের একজন একটি জঙ্গি সংগঠনের শীর্ষ পর্যায়ের নেতা। তাদেরকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ সম্ভব হলে আরও অনেক তথ্য বের করা সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

তবে পূজাকে কেন্দ্র করে এদের কোনো নাশকতার উদ্দেশ্য ছিল না বলেও জানিয়েছেন মনিরুল ইসলাম।

এখন পর্যন্ত দুই নারীর কাউকেই গ্রেপ্তার করা হয়নি জানিয়ে মনিরুল ইসলাম বলেন: দু’জনেরই নাম জানা গেছে। তবে তারা মূলত সাংগঠনিক নাম ব্যবহার করে বলে এ নামগুলো ব্যবহার করে এদের আসল পরিচয় বের করা হবে।নরসিংদী-জঙ্গি আস্তানা

বাড়িটিতে এই দু’জন ছাড়াও আরও বেশ কয়েকজনের যাতায়াত ছিল জানিয়ে সিটিটিসি প্রধান বলেন: মঙ্গলবারের অভিযানে নিহত দুই জঙ্গিরও সেখানে যাতায়াত ছিল। দু’টি বাসাই খুব কাছাকাছি সময়ে ভাড়া নেয়া হয়েছিল। একটি চলতি মাসের ৩ তারিখে, অন্যটি ৫ তারিখে।

মঙ্গলবার ও বুধবারের অভিযানে পাওয়া ৪ জঙ্গির মধ্যে ২ জনই মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন বলেও জানানো হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজন গুলশানে হলি আর্টিজানে হামলার ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তারও হয়েছিল।

এই দুই নারীকে আটকের মধ্য দিয়ে অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করেছে পুলিশ।