চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ধোনি ‘বাদ’ পড়ায় ক্ষিপ্ত সমর্থকরা

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়া সফরের জন্য টি-টুয়েন্টি দল ঘোষণা করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড(বিসিসিআই)। সেই দলে কারা সুযোগ পেলেন তা নিয়ে আলোচনা ছাপিয়ে একজনের দলে না থাকা নিয়ে যত জল্পনা-সমালোচনা। আর সেই একজন হলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি! দুই সিরিজে তার নাম না থাকাটাই খেপিয়ে তুলেছে অনেক ভারতীয় সমর্থকদের। কেউ কেউ তো বলেছেন, ‘ধোনিহীন ভারতের খেলা দেখা মূল্যহীন!’

২০০৪ সালে রঙিন পোশাকে অভিষেকের পর থেকে চোট কিংবা বিশ্রামের জন্য হয়তো দলে থাকা হয়নি। কিন্তু ক্যারিয়ারে এই প্রথমবার দুই কারণের বাইরে দল থেকে আলাদা ধোনি। বিসিসিআই যদিও বলছে তারা ধোনিকে বিশ্রাম দিয়েছে, কিন্তু তাই বলে টানা দুই সিরিজ! এই প্রশ্নটাই খেপিয়ে তুলেছে ভক্তদের। সমর্থকরা টুইটারে সমালোচনার সাগরে ভাসিয়েছেন বিসিসিআইকে।

রাবিনা আগারওয়াল নামের এক নারী ভক্ত লিখেছেন, ‘ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়ার খেলার কোনো মানে দেখি না। কারণ ধোনি নেই। আর ধোনিই যদি না থাকে তাহলে ভারতের ক্রিকেট মূল্যহীন!’

সুলতান নামের আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘বিসিসিআই তোমাদের লজ্জা হওয়া উচিত। ধোনি একজন কিংবদন্তি!’

টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেয়ার পর টি-টুয়েন্টি এবং ওয়ানডেতেই নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন ধোনি। লক্ষ্যটা ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলা। বয়স চলছে ৩৭। আগামী বছর হতে যাওয়া সেই বিশ্বকাপে খেলতে খেলতে তার বয়স গড়াবে ৩৮’এ। তাই আস্তে আস্তে ধোনির বিকল্প খোঁজার যে চেষ্টা চালাচ্ছে বিসিসিআই তা বুঝতে বাকি নেই ভক্তদের। কিন্তু কেন এভাবে বাদ পড়বেন ধোনি? এটাই মানতে পারছেন না অনেকে।

অর্পনা নামে এক নারী ভক্ত লিখেছেন, ‘তো ধোনি সামনের ম্যাচগুলোতে থাকছে না! প্রিয় বিসিসিআই, আমি অনেক স্বার্থপর সিদ্ধান্ত দেখেছি। কিন্তু এটা তার চেয়ে এক ধাপ উপরে। দীনেশ কার্তিক, রিশভ পান্ট ধোনির বিকল্প? দেখা যাক কে কেমন করে? শুধু একটাই পরামর্শ, ধোনিকে ২০১৯ বিশ্বকাপটা খেলতে দিও।’