চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘দ্বিতীয় জীবনে’ সাব্বিরের বদলে যাওয়ার প্রতিজ্ঞা

এটা আমার সেকেন্ড লাইফ: সাব্বির

চট্টগ্রাম থেকে: আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ৬ মাসের নিষেধাজ্ঞার খড়গ শেষ হয়ে গেছে মেয়াদ পূর্তির আগেই। নিউজিল্যান্ড সফরের ওয়ানডে দলেও পেয়েছেন ডাক। মাঠের বাইরের নানা কর্মকাণ্ডে বিতর্কিত সময় পার করা সাব্বির রহমান চান না নিজের ভুলের পুনরাবৃত্তি। অতীত ভুলে সতর্ক হয়েই হাঁটতে চান আগামীর পথে।

বিজ্ঞাপন

বিকাল গড়িয়ে সন্ধ্যা। সিলেট সিক্সার্সের টিম হোটেলের লবির সামনে তখনও অপেক্ষমাণ সাংবাদিকরা। হঠাৎ নেমে এলেন সাব্বির। পরে কথা বললেন সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে। জানালেন, ৫ মাস জাতীয় দলের বাইরে থাকা ও ভুলের আত্মউপলব্ধি দিয়েছে যন্ত্রণা, ‘অতীত আর মনে করতে চাই না। ভবিষ্যতে যেন তেমন কিছু না হয় সেদিকে খেয়াল রাখবো।’

‘নিজের বোধ আর অনুভূতির কাছেই দগ্ধ হচ্ছিলাম। কাউকে বলতেও পারছিলাম না। একইসঙ্গে চেষ্টা করছিলাম বিপিএলে যদি ভালো কিছু করতে পারি সুযোগ থাকবে এবং কিছুটা করে জাতীয় দলে ফিরেছি। দেখা যাক জাতীয় দলে ভালো কিছু করতে পারি কিনা।’

১৩ ফেব্রুয়ারি নেপিয়ারে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ। ওই ম্যাচ কিংবা সিরিজ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে হতে পারে সাব্বিরের প্রত্যাবর্তন। ব্যাড বয় তকমা পাওয়ায় এ ক্রিকেটার সামনের সুযোগকে দেখছেন জীবনের দ্বিতীয় অধ্যায় হিসেবে। যেখানে আছে নিজেকে শুদ্ধতার মাঝে নিয়ে যাওয়ার চ্যালেঞ্জ।

বিজ্ঞাপন

‘আসলে এটা আমার সেকেন্ড লাইফ। প্রথম ম্যাচটা যখন খেলবো, আমার সেকেন্ড ডেব্যু হবে বাংলাদেশ দলে। চেষ্টা করবো এখান থেকে ভালো কিছু করার। আগের সাব্বির যেভাবে খেলেছে, সেভাবে নিজেকে ফিরে পাওয়ার চেষ্টা করবো। কখনও ব্যর্থ হলেও নিজের উপর বিশ্বাস রাখবো এবং টিম ম্যানেজমেন্ট যা চায় তাই করবো।’

শাস্তি এক মাস কমিয়ে সাব্বিরকে নিউজিল্যান্ডে পাঠানো হচ্ছে মূলত জুনে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ মাথায় রেখেই। মারকুটে এ ব্যাটসম্যান অবশ্য বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন বিপিএল থেকেই।

‘বিপিএল অনেক বড় একটা মঞ্চ। আন্তর্জাতিক ম্যাচের মতোই হয় এখানে। ওরকমই প্রতিযোগিতা হয়, চাপ আসে। আমি ৮ ম্যাচ খেলেছি। ওভাবে রান করতে পারিনি। একটা ম্যাচে রান করেছি, ওটাই হয়ত আমাকে সাহায্য করেছে জাতীয় দলে ফিরতে। চেষ্টা করবো শেষ চার ম্যাচে ভালো খেলার। নিজের সেরাটা দেয়ার চেষ্টা থাকবে।’

ফেসবুকে এক সমর্থককে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করার কারণে সাব্বিরকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ৬ মাস নিষিদ্ধ করেছিল বিসিবি। সময়ের এক মাস আগেই মুক্তি পাওয়া সাব্বির যেমন বিসিবিকে ধন্যবাদ জানালেন, পাশাপাশি ভক্তদের ও নিজের সম্মান যেন ক্ষুণ্ণ না হয় সেদিকে সতর্ক চোখ রাখবেন বলেও জানান।

‘বিসিবিকে অসংখ্য ধন্যবাদ, আমার উপর আস্থা রাখার জন্য এবং সাহায্য করার জন্য। আবারও ধন্যবাদ সবাইকে, আমার ফ্যান-ফলোয়ার যারা আছেন, যারা সাপোর্ট করে যাচ্ছেন, চেষ্টা করবো তাদের সম্মান রাখার জন্য এবং নিজের মান-সম্মান রেখে খেলার জন্য।’