চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দাম্পত্য জীবনে সেসব পুরুষই সবচেয়ে সুখী, যাদের…

মনোবিজ্ঞানী আন্দ্রেয়া মেল্টজার প্রায় ৪৫০ দম্পতির উপর জরিপ চালিয়ে এ তথ্য উদঘাটন করেছেন।

যেসব পুরুষের সুন্দরী স্ত্রী আছে, তাদের দাম্পত্যজীবন অনেক সুখের হয়। একজন মনোবিজ্ঞানী দীর্ঘ ৪ বছর ধরে গবেষণা করে এ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন।

বিজ্ঞাপন

ফ্লোরিডা স্টেট ইউনিভার্সিটির মনোবিজ্ঞানী আন্দ্রেয়া মেল্টজার প্রায় ৪৫০ দম্পতির উপর জরিপ চালিয়ে এ তথ্য উদঘাটন করেছেন।

নারী-পুরুষ উভয়েই সুন্দরের প্রতি আকর্ষন বোধ করেন আর সেটা খুবই স্বাভাবিক এক ব্যাপার। তবে বিশেষ করে পৃথিবীর প্রায় সমস্ত সমাজেই পুরুষেরা নিজের প্রেমিকা কিংবা স্ত্রী হিসেবে একজন সুন্দরী নারীকেই কল্পনা করে থাকেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই একজন গুণবতী কিন্তু অসুন্দর নারী তাদের কল্পনায় স্থান পায় না। পুরুষের যোগ্যতা কিংবা চেহারা যেমনই হোক না কেন, স্ত্রী হিসেবে একজন সুন্দরী নারী সকল পুরুষের চাই-ই চাই।

বিজ্ঞাপন

তবে শুধুমাত্র সুন্দর চেহারার উপর ভিত্তি করে তাকে সারাজীবন ভালবেসে যাওয়া সম্ভব কিনা, তা নিয়ে অনেক মতপার্থক্য রয়েছে। দাম্পত্য সম্পর্ককে টিকিয়ে রাখতে সম্পর্কের প্রতি দুজনকেই যত্নশীল হওয়া প্রয়োজন। সেই সঙ্গে একে অপরকে ভালবাসতে হবে, শ্রদ্ধা করতে হবে, বিশ্বাস রাখতে হবে দুজনকেই। তবেই স্বামী স্ত্রীর সম্পর্ক সুন্দর হবে।

মনোবিজ্ঞানী আন্দ্রেয়ার গবেষণায় দেখা যায়, আকর্ষণীয় স্ত্রীকে বিয়ে করার মধ্যে একজন স্বামীর সন্তুষ্টি সব থেকে বেশি। এবং স্ত্রীদের শারীরিক গঠন সৌর্ন্দয্যের উপর নির্ভর করে স্বামীদের বিয়েতে সন্তুষ্টি।

তবে ওই গবেষণা মতে, পুরুষদের প্রতি নারীদের দৃষ্টিভঙ্গিটা পুরোপুরি ভিন্ন। স্বামীর চেহারা যেমনটাই হোক না স্ত্রীর তা নিয়ে তেমন একটা আক্ষেপ নেই। তার স্বামী তার উপরে সন্তুষ্ট কিনা, সেটাই তার সন্তুষ্টি।

ইউসিএলএ রিলেশন ইনস্টিটিউটের আরেকটি গবেষণাও প্রায় কাছাকাছি ধরণের তথ্য উঠে এসেছে। সেই গবেষণায় জানা গেছে যে, যেসব পুরুষের স্ত্রী দেখতে তুলনামূলক খারাপ, তারা তাদের স্ত্রীদের বাহ্যিক সৌন্দর্য নিয়ে সর্বদাই হীনমন্নতায় থাকে।

নারী-পুরুষের এমন সর্ম্পকের রহস্য নিয়ে যুগ যুগ ধরে গবেষণা চলছে। বিভিন্নসময় বিভিন্ন তথ্যে চমকে উঠছে সবাই। তবে প্রকৃত সুখ ও সন্তুষ্টি যে কিসে, তা নিয়ে হয়তো গবেষণা চলতেই থাকবে।