চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দগ্ধ মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর ওপর হামলাকারীদের শাস্তি দাবি

ফেনীতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নুসরত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন ফেনী জেলা শাখার কর্মজীবী নারী সংগঠন।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ফেনী শহীদ মিনারের সামনে এ মানববন্ধন করেন তারা।

এ সময় শুভপুর ইউনিয়নের মেম্বার ছালেহা বেগমের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন কর্মজীবী নারী, চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান রোকেয়া সুলতানা আন্জু, জাসদ, ফেনী ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কাজী আবদুল বারী, সাংবাদিক রবিউল হক রবি, কর্মজীবী নারী’র ফেনীর সদস্য রোকসানা আক্তার প্রমুখ।

বক্তরা নুসরত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার সাথে যারা জড়িত তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানান। তারা বলেন, এ ব্যপারে বিলম্ব হলে কেন্দ্র থেকে আরও বৃহত্তর কর্মসূচি নেওয়া হবে।

নুসরত জাহান দদ্ধের ঘটনায় সোমবার (৮ এপ্রিল) তার ভাই মাহমদুল হাসান নোমান সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছে। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দায়েরকৃত এই মামলায় ৪ জন মহিলাসহ তাদের অন্যান্য সহযোগীদের আসামী করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্য মো. মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, এই ঘটনায় মঙ্গলবার পর্যন্ত ৮ জনকে আটক করা হয়েছে।

এই ঘটনায় ইতোপূর্বে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রোববার আটক করা হয় মাদ্রাসার ইংরেজী বিষয়ের প্রভাষক আবছার উদ্দিন ও দগ্ধ নুসরাতের সহপাঠি আরিফুল ইসলামকে।

এরপর মাদ্রসার দারোয়ান মো. মোস্তফা, অফিস সহায়ক নূরুল আমিন, সাইফুল ইসলাম, আলা উদ্দিন ও জসিম উদ্দিনকে আটক করা হয়েছে।

গত শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে আলিম পরীক্ষা দিতে গেলে ওই মাদ্রাসার আলীম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে বোরকাপরা কিছু মুখোশধারী মাদ্রাসার ছাদে নিয়ে তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়।

এর আগে ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় অধ্যক্ষ মাওলানা এএসএম সিরাজ উদ্দৌলা ওই ছাত্রীকে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে অনৈতিক প্রস্তাব দেয়।

তখন ওই ছাত্রীর মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে তখন সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় পুলিশ মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলাকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।