চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

থাইগুহার উদ্ধারকারী ব্রিটিশ ডুবুরির মানহানী মামলার মুখে ইলন মাস্ক

টেসলা, স্পেসএক্স প্রধান ইলন মাস্কের বিরুদ্ধে মানহানীর মামলা দায়ের করেছেন থাইল্যান্ডের গুহায় কিশোরদের উদ্ধারকার কাজে সহায়তাকারী ব্রিটিশ ডুবুরি ভারনন আনসওর্থ। কারণ ভারননকে শিশু যৌন নিপীড়নকারী ও শিশু ধর্ষণকারী বলেছিলেন মাস্ক।

ভারননের অভিযোগ, কোন প্রমাণ ছাড়াই মাস্ক তার বিরুদ্ধে শিশু যৌন নিপীড়নের একের পর এক অভিযোগ এনেছেন, এমনকি শিশু ধর্ষণকারীও বলেছেন।

মামলায় মানহানীর ক্ষতিপূরণ হিসেবে ইলন মাস্কের কাছে ৭৫ হাজার মার্কিন ডলার দাবি করেছেন আনসওর্থ। কঠোর শাস্তির পাশাপাশি মাস্ক যেনো এধরনে জঘন্য আচরণ আর না করেন সেজন্য ব্যবস্থা নেয়ারও দাবি জানিয়েছেন।

মাস্কের টুইটারের ফলোয়ার সংখ্যা প্রায় আড়াই কোটি। দায়ের করা মামলায় অভিযোগ বলা হয়, মাস্ক প্রায়ই টুইটার অ্যাকাউন্ট দিয়ে আনসওর্থের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও মানহানীকর অভিযোগ তুলেছেন।

তাই মাস্কের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলে আসছিলেন আনসওর্থ। এই পদক্ষেপের সাবধানবাণীকেও পাত্তা দেননি মাস্ক, উল্টো রসিকতা করে বলেছিলেন,“অদ্ভুততো! সে এখনো মামলা করেনি”।

এখন সত্যি সত্যিই মাস্কের বিরুদ্ধে ক্যালিফোর্নিয়ার আদালতে মামলা করে বসলেন আনসওর্থ। লন্ডনেও মামলা দায়ের করতে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

থাইল্যান্ডে গুহায় আটকা পড়া ১২ কিশোরকে উদ্ধার অভিযান ঘিরেই মাস্ক-আনসওর্থ দ্বন্দ্বের সূচনা। কিশোরদের উদ্ধারে একটি মিনি-সাবমেরিন দিতে চেয়েছিলেন মাস্ক।

তখন আনসওর্থ সিএনএন-কে বলেছিলেন,‘এটা নিছক প্রচারণা, এই সাবমেরিন দিয়ে দিয়ে কোনভাবেই কাজ হবে না।’

এই মন্তব্যের বাকী অংশে নিজেও মাস্কের প্রতি বাজে ইঙ্গিতে কটূক্তি করেছিলেন আনসওর্থ।

FacebookTwitterInstagramPinterestLinkedInGoogle+YoutubeRedditDribbbleBehanceGithubCodePenEmail