চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ড. কামালের ফাউলের পরও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের স্বার্থে নমনীয় ইসি: আ.লীগ

ড. কামাল হোসেন একের পর এক লাল কার্ড দেখানোর মতো ফাউল করে গেলেও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচন কমিশন নমনীয়তা প্রদর্শন করে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ।

বিজ্ঞাপন

তারা বলছে: অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে সবাইকে গণতান্ত্রিক এবং আইনসিদ্ধ আচরণ করতে হবে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন দলটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন: বিএনপি-জামায়াত ঐক্যফ্রন্টের কর্মকাণ্ড দেখে মনে হচ্ছে তারা জয়-পরাজয় নির্ধারণের জন্য নির্বাচনে অংশ নেয়নি। তাদের অন্য কোনো উদ্দেশ্য রয়েছে। তারা নির্বাচনী প্রচারণার শুরু থেকেই প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় অংশ নে‌য়নি, পোস্টার-ব্যানার না টাঙিয়ে নাশকতা, সন্ত্রাসের আর মিথ্যাচারের পথ বেছে নিয়েছে।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন: একদিকে তারা লাগাতার মিথ্যাচার করছে অন্যদিকে সন্ত্রাস এবং সহিংসতা চালিয়ে যাচ্ছে। যার অংশ হিসেবে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা নির্বাচন কমিশন পুলিশ-সাংবাদিকসহ নির্বাচন পরিচালনার কাজে নিয়োজিত সকলের প্রতি উস্কানি দিয়ে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশন অত্যন্ত ধৈর্যের সাথে তা মোকাবেলা করছে। কোন প্রতিক্রিয়া এখন পর্যন্ত তারা দেখায়নি।

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়: বিএনপি জামায়াত এবং ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার লক্ষ্যে লাগাতার মিথ্যাচার এবং অপপ্রচার চালাচ্ছে। নিজেদের দলীয় কোন্দলকে পুঁজি করে তারা আওয়ামী লীগের ওপর দোষ চাপাচ্ছে। এমনকি সরকার, প্রশাসন, নির্বাচন কমিশনসহ দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে।

আজ থেকে ঐক্যফ্রন্টের সহিংসতার পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হয় সংবাদ সম্মেলন থেকে। বলা হয়: গত কয়েক দিনে বিএনপি নেতাদের ফাঁস হওয়া ফোনালাপে দেখা গেছে তারা তাদের নেতাকর্মীদের দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সহিংসতার জন্য নির্দেশনা দিচ্ছে। গতকালও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে তারা নাশকতা সৃষ্টি করেছে। এ বিষয়ে আমরা নির্বাচন কমিশনে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করেছি। এর পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলে আমরা আশংকা করছি৷ দেশবাসীকে এখন এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।